পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার পূর্বশর্ত এবং লক্ষণীয় বিষয়

প্রথমত : পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার প্রধান পূর্বশর্ত হল পবিত্র কুরআন কিভাবে পড়তে হয় তা জানা। পড়ায় দক্ষ হওয়া জরুরি না। কেউ কষ্ট করে পড়তে পারলেও চলবে।

দ্বিতীয়ত : কুরআনের ব্যাকরণ শেখার সময় নিচের বিষয়গুলো লক্ষ্য রাখতে হবে :

👉 ওয়াকফ না করে পড়লে উচ্চারণটা কেমন হত

পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করার সময়, আমরা ওয়াকফের নিয়ম মেনে চলি এবং প্রয়োজনে উচ্চারণ ছেঁটে ফেলি।কিন্তু ব্যাকরণ শিখার জন্য উচ্চারণটি ছেঁটে না ফেললে কেমন হত লক্ষ্য রাখতে হবে।বিষয়টি বোঝার জন্য নিচের টেবিলে কিছু উদাহরণ দেওয়া হল:

কী ছিলকী পড়ি আয়াত
আহাদুনআহাদقُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ
লুমাযাতিনলুমাযাহوَيْلٌ لِّكُلِّ هُمَزَةٍ لُّمَزَةٍ 
আল্লাহুআল্লাহإِنْ شَاءَ ٱللَّٰهُ
লিল্লাহিলিল্লাহ الْحَمْدُ لِلَّهِ 

👉 না মিলিয়ে পড়লে কেমন হত

পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করার সময়, আমরা তাজবীদের নিয়ম অনুসরণ করে একটি শব্দের সাথে অন্য একটি শব্দকে মিলিয়ে পড়ি। এটি তিলাওয়াতের জন্য ঠিক আছে। কিন্তু ব্যাকরণ বোঝার জন্য আমাদের প্রতিটি শব্দ আলাদা করে বুঝতে হবে। অতএব, লক্ষ্য রাখতে হবে একটি শব্দের সাথে অন্য একটি শব্দকে মিলিয়ে ফেলার আগে শব্দের প্রকৃত রূপ কী ছিল। বিষয়টি বোঝার জন্য নিচের টেবিলে কিছু উদাহরণ দেওয়া হল:

কী ছিলকিভাবে পড়ি আয়াত
বিসমি আল্লাহি আররহমানি আররহিমিবিসমিল্লাহির রহমানির রহিম بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ 
কূল হুয়া আল্লাহু আহাদুনকূল হুয়াল্লাহু আহাদ قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ 
আল্লাহু আছ্ছমাদুআল্ল হুছ্ছমাদ اللَّهُ الصَّمَدُ

👉 নূন/ن হরফকে আলাদা করে গুরুত্ব দিতে হবে

নূন/ن হরফটি দুইটি রূপে পাওয়া যাবে। একটি দৃশ্যমান এবং আরেকটি লুকায়িত। দৃশ্যমান নূন হরফের ব্যাপারে বিস্তারিত ব্যাখ্যার প্রয়োজন নেই কারণ এই নূন হরফটি শব্দের শেষে দেখা যাবে। অন্যদিকে লুকায়িত নূন হরফটি তানবীনের মধ্যে নূন ছাকিন হিসাবে লুকায়িত থাকে। বিষয়টি বোঝার জন্য নিচে উদাহরণ দেওয়া হল:

যেমন مُفْلِحُوْنَ শব্দের মধ্যে নূন/ن হরফটি দেখা যাচ্ছে অন্যদিকে مُفْلِحٌ শব্দের মধ্যে নূন হরফ যদিও দেখা যাচ্ছেনা কিন্তু তানবীনকে যদি বিশ্লেষণ করি, তাহলে একটি নূন ছাকিন حُنْ পাওয়া যায়।

👉 মদের হরফগুলোকে আলাদা করে গুরুত্ব দিতে হবে

আরবি ব্যাকরণে তিনটি মদের হরফ রয়েছে যথা ا و ي এই তিনটি মৌলিক মদের হরফের নিয়মগুলো নিম্নরূপ :

ক. যবরের বাম পাশে খালি আলিফ মদের হরফ। মদের হরফ হলে এক আলিফ টেনে পড়িতে হয়।যেমন بَا
খ. পেশের বাম পাশে জযম ওয়ালা ওয়াও মদের হরফ। মদের হরফ হলে এক আলিফ টেনে পড়িতে হয়। যেমন بُوْ
গ. যেরের বাম পাশে জযমওয়ালা ইয়া মদের হরফ। মদের হরফ হলে এক আলিফ টেনে পড়িতে হয়। যেমন بِىْ
ঘ. এছাড়াও খাড়া যবর, খাড়া যের, উল্টা পেশ হইলে এক আলিফ টেনে পড়িতে হয়।

আরবি ব্যাকরণ বুঝার জন্য পূর্বোক্ত মদের হরফগুলোর ব্যবহার মনোযোগ সহকারে লক্ষ্য করতে হবে।

3 comments

  1. SubhanAllah Etto details to jantam na. কিন্তু একটা প্রশ্ন। مُفْلِحٌ. শব্দটির মূল কী তবে مُفْلِحُنْ ছিলো। আর উচ্চারণের সুবিধা বা অন্য কারণে কী তানউইন আনা হয়েছে?

  2. You should enable Next post Previous post pagination in 2022 theme for easier navigation

Comments are closed.

error: Content is protected !!