এই ব্লগটি আপনাকে কিভাবে সাহায্য করবে !!

আসসালামু আলাইকুম ! বাংলা ভাষাভাষী মানুষ যাদের কখনো মাদ্রাসা অথবা অন্য কোন দ্বীনি প্রতিষ্ঠানে পবিত্র কুরআনুল কারীমের আরবি ব্যাকরণ শিখার সুযোগ হয়নি, তারা এই ওয়েবসাইট/ব্লগটির মাধ্যমে খুব সহজে আরবি ব্যাকরণ শিখে পবিত্র কুরআনুল কারীমের অর্থ বুঝতে পারবেন ইন শা আল্লাহ ! এখানে নাহু/Nahw ও ছারফ/Sarf দুটি বিভাগ রয়েছে । উল্লেখ্য আরবি ব্যাকরণে, নাহু/Nahw (نَحْو) এবং… Continue reading এই ব্লগটি আপনাকে কিভাবে সাহায্য করবে !!

পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার পূর্বশর্ত এবং লক্ষণীয় বিষয়

পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার পূর্বশর্ত পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার প্রধান পূর্বশর্ত হল পবিত্র কুরআন কিভাবে পড়তে হয় তা জানা। পড়ায় দক্ষ হওয়া জরুরি না। কেউ কষ্ট করে পড়তে পারলেও চলবে।যারা পবিত্র কুরআনুল কারীম পড়তে পারেননা, তারা ১০ মিনিটস স্কুল থেকে এই “২৪ ঘণ্টায় কোরআন শিখি“ পেইড কোর্সটি করে নিতে পারেন । পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার… Continue reading পবিত্র কুরআনের ব্যাকরণ শেখার পূর্বশর্ত এবং লক্ষণীয় বিষয়

পদ/ Parts of Speech

পদ/Parts of Speech বাক্যে ব্যবহৃত প্রত্যকটি শব্দই একেকটি পদ । যেমন রাতুল একজন ছাত্র। এই বাক্যে রাতুল একটি পদ, একজন একটি পদ এবং ছাত্র একটি পদ I আরবি ব্যাকরণের ক্ষেত্রেও একই কথা প্রযোজ্য। যেমন قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ এখানে قُلْ একটি পদ, هُوَ একটি পদ, اللَّهُ একটি পদ এবং أَحَدٌ একটি পদ। পবিত্র কুরআনের আরবি… Continue reading পদ/ Parts of Speech

পদের প্রকারভেদ

পদের প্রকারভেদ পবিত্র কোরআনে প্রায় ৭৭,৪৩০ টি শব্দ আছে। এই ৭৭,৪৩০ টি শব্দকে আমরা যদি আরবি ব্যাকরণের পদের প্রকারভেদ অনুযায়ী বিভক্ত করি, তাহলে মাত্র তিনটি পদ পাওয়া যাবে।  যথা ইসম, হারফ এবং ফিল। প্রথম ধাপে এই তিনটি পদের মধ্যে ইসম ও হারফ মিলে ৩৯০ টি শব্দ শিখবো যেগুলো পবিত্র কোরআনে প্রায় ৪৬,৫৩৫ বার ব্যবহৃত হয়েছে।… Continue reading পদের প্রকারভেদ

ইসমের পরিচিতি

ইসম কাকে বলে? ইসম এমন একটি শব্দ যা একটি বাক্যে ব্যক্তি, স্থান, জিনিস, প্রাণী বা কোন মতের ধারণা দেয়।  এমনকি ইসমের মধ্যে সর্বনাম, বিশেষণ ও আরো কিছু অন্তুর্ভুক্ত। ইসম কোন কালের সাথে সম্পর্কিত নয়।আরবি ব্যাকরণে পদ তিন প্রকার। তন্মধ্যে ইসম অন্যতম এবং সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত পদ। নিচের টেবিল থেকে বিভিন্ন ধরণের ইসমের উদাহরণ দেখবো :… Continue reading ইসমের পরিচিতি

ইসমের বৈশিষ্ট্য/Properties of Ism

ইসমের বৈশিষ্ট্য আরবি ব্যাকরণে, প্রতিটি ইসমের চারটি বৈশিষ্ট্য পাওয়া যায় : স্টেটাস/Status : একটি ইসম বাক্যে কি ভূমিকা/মর্যাদায় অবস্থান করছে, তা সম্পর্কে ধারণা দেয়। বচন/Number : বচন দ্বারা ইসমের সংখ্যার ধারণা দেয় যেমন এক, দুই অথবা দুয়ের অধিক। লিঙ্গ/Gender :   ইসমটি পুরুষবাচক অথবা স্ত্রীবাচক এ সম্পর্কে ধারণা দেয়। টাইপ/Type : ইসমটি নির্দিষ্ট অথবা অনির্দিষ্ট এ… Continue reading ইসমের বৈশিষ্ট্য/Properties of Ism

স্টেটাস/Status

স্টেটাস/Status বলতে কি বুঝায় ? আরবী ব্যাকরণে স্টেটাস অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি ধারণা/Concept. স্টেটাস দিয়ে একটি ইসম বাক্যে কি ভূমিকা/মর্যাদায় অবস্থান করছে, তা বুঝানো হয়।যেমন একটি বাক্যে একটি ইসম কখনো বাক্যের কর্তা/Subject হিসেবে কাজ করতে পারে, কখনো কর্ম/Object হিসেবে কাজ করতে পারে আবার কখনো সম্বন্ধসূচক/Possessive Adjective ভূমিকায় থাকতে পারে। স্টেটাস/Status শুধুমাত্র ইসমের জন্য প্রযোজ্য। উদাহরণস্বরূপ নিচের তিনটি… Continue reading স্টেটাস/Status

হেভি বনাম লাইট 

হেভি/Heavy স্বাভাবিকভাবে একটি ইসম সবসময় হেভি/Heavy ফর্মে থাকবে।  হেভি ফর্মে একবচনের ক্ষেত্রে তানউইন  পাওয়া যাবে। দুই পেশ, দুই যবর, দুই যের কে তানউইন বলা হয়। তানউইনের ভিতরে নূন সাকিন লুকায়িত থাকে। দ্বিবচন ও বহুবচনের ক্ষেত্রে একটি দৃশ্যমান নূন ن  হরফ আসে। যেমন:  লাইট/Light লাইট ফর্মে একবচনের ক্ষেত্রে কোন তানউইন থাকেনা এবং দ্বিবচন ও বহুবচনের ক্ষেত্রে একটি অতিরিক্ত নূন ن হরফ আসে না।  তবে মূল শব্দের… Continue reading হেভি বনাম লাইট 

লাইট/Light ফর্মের ব্যবহার 

লাইট ইসম বলতে কি বুঝায় ? যেসকল ইসমে কখনো শুরুতে ال আসেনা। এছাড়া একবচনের (পুরুষবাচক ও স্ত্রীবাচক) ও স্ত্রীবাচক (বহুবচনের) ক্ষেত্রে কোন তানউইন থাকেনা এবং দ্বিবচন (পুরুষবাচক ও স্ত্রীবাচক) ও বহুবচনের (পুরুষবাচক) ক্ষেত্রে শেষে একটি অতিরিক্ত নূন হরফ আসে না। কিন্তু যদি ইসমটি Partly Flexible অথবা Non-Flexible হয়, তাহলে হেভি ফর্মে ও লাইট ফর্ম দেখতে একইরকম হতে… Continue reading লাইট/Light ফর্মের ব্যবহার 

বচন/Number

বচন/Number বচন/Number একটি ইসমের সংখ্যার ধারণা দেয় ।যদিও ইংরেজি বা বাংলা ব্যাকারণে আমরা সাধারণত একবচন ও বহুবচনের বর্ণনা দেখি কিন্তু আরবি ব্যাকারণে বচন তিন প্রকারের: একবচন/Singular যে ইসম একটিমাত্র ব্যক্তি/বস্তু সম্পর্কে ধারণা দেয় তাকে একবচন বলে। যেমন একটি বাড়ি, একটি কলম, একজন মুসলিম ইত্যাদি। দ্বিবচন/Dual যে ইসম দুজন ব্যক্তি বা দুটি বস্তু সম্পর্কে ধারণা দেয় তাকে দ্বিবচন… Continue reading বচন/Number

নমনীয়তা/ Flexibility

নমনীয়তা/ Flexibility একটি ইসমের স্টেটাস সাধারণভাবে রফা, নাসব এবং জারের ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন রূপ হয়ে থাকে । যেমনটা আমরা মুসলিমুন চার্টের একবচনের ক্ষেত্রে দেখতে পাই। অন্যদিকে মুসলিমুন চার্টের দ্বিবচন/বহুবচনের ক্ষেত্রে অথবা মুসলিমুন চার্ট ছাড়াও অন্যান্য ইসমের ক্ষেত্রে নাসব এবং জারের ফর্মগুলো দেখতে একইরকম হয়। আবার কিছু ইসম মোটেই মুসলিমুন চার্ট অনুসরণ করে না অর্থাৎ রফা, নাসব… Continue reading নমনীয়তা/ Flexibility

পুরুষবাচক বহুবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

তিনটি ধাপে একটি পুরুষবাচক একবচন ইসম (হেভি ফর্ম) থেকে বহুবচন ইসম করতে পারি। নিচে প্রতি ধাপের বর্ণনা দেয়া হলো : ধাপ-১: একবচন হেভি ফর্মের রফা ও জার্ স্ট্যাটাসের ইসম থেকে نْ /নূন সাকিনকে সরিয়ে রাখবো। نْ /নূন সাকিন বিহীন ফর্ম হেভি ফর্ম স্টেটাস مُسْلِمُ مُسْلِمٌ রফা – مُسْلِمًا নাসব مُسْلِمِ مُسْلِمٍ জার ধাপ-২: نْ /নূন… Continue reading পুরুষবাচক বহুবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

অনিয়মিত বহুবচন/Broken Plural

আরবী ব্যাকরণে বহুবচন (Plural) দুপ্রকার   নিয়মিত বহুবচন جَمْعُ السَّالِمِ (Regular Plural)  যে সকল ইসম বহুবচন হওয়ার ক্ষেত্রে মুসলিমুন চার্ট অনুসরণ করে অর্থাৎ পুরুষবাচক হেভি ফর্মে বহুবচন হওয়ার ক্ষেত্রে OONA/EENA দিয়ে শেষ হয় এবং স্ত্রীবাচক হেভি ফর্মে বহুবচন হওয়ার ক্ষেত্রে AATUN/AATEEN হয়। অনিয়মিত বহুবচন  جَمْعُ التَّكْسِيرِ (Broken Plural) যে সকল ইসম বহুবচন হওয়ার ক্ষেত্রে মুসলিমুন চার্ট অনুসরণ করে… Continue reading অনিয়মিত বহুবচন/Broken Plural

লিঙ্গ/Gender

আরবী ব্যাকরণে লিঙ্গ/Gender দুপ্রকার  আরবি ব্যাকরণে, সমস্ত ইসমই হয় পুরুষবাচক বা স্ত্রীবাচক হবে। যেমন একটি বই, একটি কলম,,আকাশ, চন্দ্র , সূর্য ইত্যাদি হয় পুরুষবাচক নয়তো স্ত্রীবাচক হবে যেহেতু পুরুষবাচক ও স্ত্রীবাচকের বাহিরে আর কোনো প্রকার লিঙ্গ/gender নেই। লিঙ্গ/Gender নির্ধারণ করার সহজ উপায় হল এটি স্ত্রীবাচক কিনা নিশ্চিত করা। যদি স্ত্রীবাচক বলার কোন কারণ না থাকে… Continue reading লিঙ্গ/Gender

যেসব কারণে একটি ইসম স্ত্রীবাচক হয়

আরবী ব্যাকরণে সাধারণত একটি ইসম পুরুষবাচক হয় অথবা স্ত্রীবাচক হয়।সাধারণভাবে একটি পুরুষবাচক ইসম দিয়ে শুধুমাত্র পুরুষবাচক অথবা পুরুষ ও স্ত্রীবাচক উভয়কে একসাথে বুঝাতে ব্যবহৃত হয়। অন্যদিকে শুধুমাত্র স্ত্রীবাচক বুঝাতে আলাদা করে স্ত্রীবাচক ইসমের প্রয়োজন হয়। মুসলিমুন চার্টের একবচনের ক্ষেত্রে, একটি পুরুষবাচক ইসমের শেষে “তা মারবুতা (ة)” এনে তুন, তান, তিন যোগ করে ইসমটি স্ত্রীবাচক করতে… Continue reading যেসব কারণে একটি ইসম স্ত্রীবাচক হয়

আরবরা যেসব শব্দকে স্ত্রীবাচক হিসাবে বিবেচনা করেছেন 

স্ত্রীবাচক ইসম কারণ আরবরা স্ত্রীবাচক হিসাবে বিবেচনা করেছেন  আরবি ব্যাকরণে, Gender/লিঙ্গ দুই প্রকারের যথা পুরুষবাচক ও স্ত্রীবাচক। অতএব, আমরা পবিত্র কুরআনুল কারীমে যত ইসম পাই, এগুলো হয় পুরুষবাচক অথবা স্ত্রীবাচক। এমন কিছু ইসম আছে (যেমন আকাশ, সূর্য ইত্যাদি) যা পূর্বজ্ঞান ছাড়া নির্ধারণ করা সম্ভব নয় এগুলো পুরুষবাচক/স্ত্রীবাচক। আমরা এখন নিম্নে বর্ণিত একটি গল্পের মাধ্যমে এমন… Continue reading আরবরা যেসব শব্দকে স্ত্রীবাচক হিসাবে বিবেচনা করেছেন 

স্ত্রীবাচক একবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

দুটি ধাপে একটি পুরুষবাচক একবচন ইসম (হেভি ফর্ম) থেকে একটি স্ত্রীবাচক একবচন ইসম গঠন করতে পারি। নিচে প্রতিটি ধাপের বর্ণনা দেয়া হলো : ধাপ-১: একবচন পুরুষবাচক হেভি ফর্মের নাসব স্ট্যাটাসের ইসম থেকে نْ /নূন সাকিনকে সরিয়ে দিবো। نْ /নূন সাকিন বিহীন ফর্ম হেভি ফর্ম স্টেটাস – مُسْلِمٌ রফা مُسْلِمَ مُسْلِمًا নাসব – مُسْلِمٍ জার ধাপ-২:… Continue reading স্ত্রীবাচক একবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

স্ত্রীবাচক বহুবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

তিনটি ধাপে একটি স্ত্রীবাচক একবচন ইসম (হেভি ফর্ম) থেকে স্ত্রীবাচক বহুবচন ইসম করতে গঠন পারি। নিচে প্রতি ধাপের বর্ণনা দেয়া হলো : ধাপ-১: স্ত্রীবাচক একবচন হেভি ফর্মের রফা, নাসব ও জার্ স্ট্যাটাসের ইসম থেকে যথাক্রমে ةً , ةٌ ও ةٍ সরিয়ে রাখবো। ةً , ةٌ ও ةٍ বিহীন ফর্ম স্ত্রীবাচক একবচন হেভি ফর্ম স্টেটাস مُسْلِمَ… Continue reading স্ত্রীবাচক বহুবচন ইসম গঠন করার নিয়ম

টাইপ/Type

আরবি ব্যাকরণে একটি ইসমের নির্দিষ্ট বা অনির্দিষ্ট হওয়ার উপর নির্ভর করে দুই ভাগে ভাগ করা যায়।  যেমন : নির্দিষ্ট/definite/মা’রেফা  مَعْرِفَةٌ যে ইসম নির্দিষ্ট ব্যক্তি, স্থান, জিনিস বা ধারণা বুঝায়, তাকে নির্দিষ্ট/definite/মা’রেফা  مَعْرِفَةٌ বলে। কিছু ইসম সহজাতভাবে নির্দিষ্ট। উদাহরণ হিসাবে নামবাচক বিশেষ্যর কথা বলতে পারি যেমন : পবিত্র কুরআনুল কারীমে বর্ণিত বিভিন্ন চরিত্র : عِيسَىٰ ( ঈসা আ:), يُوسُفُ (ইউসুফ… Continue reading টাইপ/Type

যেসব কারণে একটি ইসম নির্দিষ্ট হয় 

আরবী ব্যাকরণে সাধারণভাবে একটি ইসম অনির্দিষ্ট। মুসলিমুন চার্টের হেভি ফর্মের সাথে অতিরিক্ত আলিফ লাম (ال) যুক্ত করার মাধ্যমে ইসমগুলোকে নির্দিষ্ট বানাতে পারি। পূর্বোক্ত কারণ ছাড়াও, আরো কিছু কারণের জন্য একটি ইসম নির্দিষ্ট হতে পারে। সারসংক্ষেপ নিচে দেওয়া হল: ১. ইসমের শুরুতে অতিরিক্ত আলিফ লাম (ال) আসলে  যেমন مُفْلِحٌ অর্থ একজন সফল ব্যক্তি যা অনির্দিষ্ট। কিন্তু… Continue reading যেসব কারণে একটি ইসম নির্দিষ্ট হয় 

মুসলিমুন চার্ট

মুসলিমুন চার্ট থেকে একটি সাধারণ ইসমের (common noun) স্টেটাস, বচন, লিঙ্গ ও টাইপ পরিবর্তনের কারণে কি কি রূপ হতে পারে একসাথে তার একটি সামগ্রিক চিত্র পাওয়া যায়। মুসলিমুন চার্ট থেকে সর্বমোট ৫৪ টি ফর্ম পাওয়া যায় তা নিচে দেওয়া হল : পুরুষবাচক হেভি ফর্মের জন্য ৯ টি ফর্ম দেখানো হলো : পুরুষবাচক লাইট ফর্মের জন্য… Continue reading মুসলিমুন চার্ট

نَاصِرٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুকরণে ৫৪ টি ফর্ম

نَاصِرٌ একজন সাহায্যকারী নিম্নলিখিত টেবিলে نَاصِرٌ একজন সাহায্যকারী ইসমের ৫৪ টি ফর্ম দেওয়া হয়েছে: পুরুষবাচক হেভি ৯ টি ফর্ম বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  نَاصِرُوْنَ نَاصِرَانِ نَاصِرٌ রফা  نَاصِرِيْنَ نَاصِرَيْنِ نَاصِرًا নাসব  نَاصِرِيْنَ نَاصِرَيْنِ نَاصِرٍ জার্ পুরুষবাচক Light ৯ টি ফর্ম বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  نَاصِرُوْ نَاصِرَا نَاصِرُ রফা  نَاصِرِيْ نَاصِرَيْ نَاصِرَ নাসব  نَاصِرِيْ نَاصِرَيْ نَاصِرِ জার্ পুরুষবাচক… Continue reading نَاصِرٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুকরণে ৫৪ টি ফর্ম

مُعَلِّمٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুকরণে ৫৪ টি ফর্ম

مُعَلِّمٌ একজন শিক্ষক নিম্নলিখিত টেবিলে مُعَلِّمٌ একজন শিক্ষক ইসমের ৫৪ টি ফর্ম দেওয়া হয়েছে: পুরুষবাচক হেভি ৯ টি ফর্ম বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  مُعَلِّمُوْنَ مُعَلِّمَانِ مُعَلِّمٌ রফা  مُعَلِّمِيْنَ مُعَلِّمَيْنِ مُعَلِّمًا নাসব  مُعَلِّمِيْنَ مُعَلِّمَيْنِ مُعَلِّمٍ জার্ পুরুষবাচক Light ৯ টি ফর্ম বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  مُعَلِّمُوْ مُعَلِّمَا مُعَلِّمُ রফা  مُعَلِّمِي مُعَلِّمَي مُعَلِّمَ নাসব  مُعَلِّمِي مُعَلِّمَي مُعَلِّمِ জার্ পুরুষবাচক… Continue reading مُعَلِّمٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুকরণে ৫৪ টি ফর্ম

كَافِرٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুশীলন

كَافِرٌ একজন অবিশ্বাসী নিম্নলিখিত টেবিলে كَافِرٌ একজন অবিশ্বাসী ইসমের ১৮ টি Heavy ফর্ম দেওয়া হয়েছে: পুরুষবাচক হেভি ফর্ম  বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  كَافِرُوْنَ كَافِرَانِ كَافِرٌ রফা  كَافِرِيْنَ كَافِرَيْنِ كَافِرًا নাসব  كَافِرِيْنَ كَافِرَيْنِ كَافِرٍ জার্ স্ত্রীবাচক হেভি ফর্ম  বহুবচন  দ্বিবচন  একবচন  كَافِرَاتٌ كَافِرَتَانِ كَافِرَةٌ রফা  كَافِرَاتٍ كَافِرَتَيْنِ كَافِرَةً নাসব  كَافِرَاتٍ كَافِرَتَيْنِ كَافِرَةٍ জার্ নিচের টেবিলে ال (আলিফ… Continue reading كَافِرٌ ইসম দিয়ে মুসলিমুন চার্টের অনুশীলন

সর্বনাম/Pronoun

সর্বনাম/Pronoun কাকে বলে ? বিশেষ্য পদের পরিবর্তে যে পদ ব্যবহৃত হয় তাকে সর্বনাম পদ বলে। অন্যভাবে বলতে পারি, একই বিশেষ্য পদ বার বার ব্যবহার না করে তার পরিবর্তে যে পদ ব্যবহৃত হয় তাই সর্বনাম পদ। নিম্নের বর্ণনায় বিশেষ্য পদের একাধিক বার ব্যবহার দেখানো হয়েছে: “মাহফুজ একজন শিক্ষক। মাহফুজ ইংরেজি পড়ান। মাহফুজের ইংরেজির জ্ঞান অনেক গভীর।… Continue reading সর্বনাম/Pronoun

মুক্ত সর্বনাম / Detached Pronoun

মুক্ত সর্বনাম / Detached Pronoun মুক্ত/Detached নাম থেকে অনুমান করতে পারি এই সর্বনামগুলো কোন ইসম, হার্ফ বা ফি’লের সাথে যুক্ত অবস্থায় থাকেনা বরং সর্বদা মুক্ত অবস্থায় থাকবে। আরবি ব্যাকরণে মুক্ত সর্বনাম ১৪ টি। নিচে অর্থসহ ১৪ টি সর্বনামের তালিকা দেয়া হল: বহুবচন দ্বিবচন একবচন লিঙ্গ পুরুষ তারা هُمْ তারা দুজন هُمَا সে هُوَ পুং ৩য় পুরুষ তারা هُنَّ… Continue reading মুক্ত সর্বনাম / Detached Pronoun

সর্বনামের ব্যবহার

সর্বনামের বৈচিত্রপূর্ণ ব্যবহার অন্য যে কোনো ভাষার মতো, আরবি ভাষায়ও সর্বনামের বৈচিত্রপূর্ণ ব্যবহার রয়েছে। সর্বনাম বাক্যাংশ গঠনে ব্যবহৃত হয় এবং বাক্যে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে । নিম্নে সর্বনামের কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যবহার দেখবো ইন শা আল্লাহ : যুক্ত সর্বনাম মুদফ ইলাইহি হিসাবে ইসমের সাথে যখনই যুক্ত সর্বনাম আসে, তখনই মুদফ ইলাইহি হিসাবে কাজ করে। পবিত্র কুরআনুল… Continue reading সর্বনামের ব্যবহার

Published
Categorized as Nahw

যুক্ত সর্বনাম/Attached Pronoun

যুক্ত সর্বনাম বলতে কি বুঝায় ? যুক্ত সর্বনাম বলতে ঐসকল সর্বনামগুলোকে বুঝায় যারা সর্বদা কোনো ইসম, ফি’ল অথবা হারফের সাথে যুক্ত অবস্থায় থাকে এবং কখনো মুক্ত অবস্থায় দেখা যায়না। প্রতিটা ইসমের তিনটি স্টেটাস হয় যথা রফা , নাসব ও জার্। সর্বনামও যেহেতু ইসমের অন্তর্ভুক্ত, তাই প্রতিটা সর্বনামের তিনটি স্টেটাস পাওয়া যাবে। মুক্ত সর্বনামের স্টেটাস সর্বদা… Continue reading যুক্ত সর্বনাম/Attached Pronoun

বাক্যাংশের পরিচিতি 

বাক্যাংশ আমরা এখন পর্যন্ত যতগুলো পোস্ট পড়েছি সব হল একটি ইসম অথবা হরফ কেন্দ্রিক। অর্থাৎ আমরা ইসমের বৈশিষ্ট্য, সর্বনাম এবং হরফে জার্ শিখেছি। এখন আমরা শিখবো একটি ইসমের সাথে আরেকটি ইসম অথবা একটি হরফের সাথে একটি ইসম যুক্ত হয়ে কিভাবে বাক্যাংশ তৈরি করে। আমাদের শিখার পদ্ধতিটা অনেকটা ছোটবেলায় আমার ব্লক দিয়ে বিল্ডিং বানানোর মত।প্রথমে বিভিন্ন… Continue reading বাক্যাংশের পরিচিতি 

বাক্যাংশ-১ জার্ মাজরূর 

জার্ মাজরূর পবিত্র কোরআনে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত বাক্যাংশ। পবিত্র কোরআনের প্রায় প্রতিটি পৃষ্ঠায় জার্ মাজরূর এর ব্যবহার দেখা যায়। তাই এই বাক্যাংশটি বুঝলে আরবি ব্যাকরণ শিখার একটা বড় মাইলফলক অর্জিত হয়। হারফ জার্ মাজরূর বুঝতে হলে প্রথমে হারফ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। হারফ হচ্ছে সেই পদান্বয়ী অব্যয় যা কোন শব্দের পূর্বে ব্যবহার না করা পর্যন্ত… Continue reading বাক্যাংশ-১ জার্ মাজরূর 

বাক্যাংশ-২ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি 

মুদফ এবং মুদফ ইলাইহি দুটি ইসমের মধ্যে সাধারণত মালিকানার (সংশ্লিষ্টতার) সম্পর্ক বুঝানোর জন্য এই বাক্যাংশ ব্যবহৃত হয়।  যে মালিক হয় তাকে বলে “মুদফ-ইলাইহি” مضاف اليه এবং যাকে/যেই বস্তুটি কারো মালিকানায় থাকে তাকে বলে মুদফ مضاف বাংলায় সাধারণত মুদফ ও মুদফ ইলাইহির মধ্যে একটি ” র ” এর সম্পর্ক পাওয়া যায়।  যেমন :  বাক্যাংশমুদফ ও মুদফ ইলাইহি মুদফ ইলাইহিজিনিসটা কার/কিসের  মুদফজিনিসটা কী  রাজশাহীর আম… Continue reading বাক্যাংশ-২ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি 

মুদফ ও মুদফ ইলাইহির দ্বিস্তরের সম্পর্ক

আমরা আগের পোস্ট থেকে জেনেছি দুটি ইসমের মধ্যে সাধারণত মালিকানার (সংশ্লিষ্টতার) সম্পর্ক বুঝানোর জন্য মুদফ ও মুদফ ইলাইহি বাক্যাংশ ব্যবহৃত হয়।  যে মালিক হয় তাকে বলে “মুদফ-ইলাইহি” مضاف اليه এবং যাকে/যেই বস্তুটি কারো মালিকানায় থাকে তাকে বলে মুদফ مضاف আমরা আরো জেনেছি বাংলায় সাধারণত মুদফ ও মুদফ ইলাইহির মধ্যে একটি ” র ” এর সম্পর্ক পাওয়া যায়।  এই মুদফ… Continue reading মুদফ ও মুদফ ইলাইহির দ্বিস্তরের সম্পর্ক

জার্ মাজরূর এবং মুদফ ও মুদফ ইলাইহির সমন্বিত বাক্যাংশ

একটি বাক্যের মধ্যে শুধুমাত্র জার্ মাজরূর বাক্যাংশ থাকতে পারে অথবা মুদফ ও মুদফ ইলাইহি বাক্যাংশ থাকতে পারে। কখনো কখনো জার্ মাজরূর এবং মুদফ ও মুদফ ইলাইহি সমন্বিতভাবে (in an integrated way) থাকতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে প্রথমে জার্ মাজরূর বাক্যাংশ আসে এবং মাজরূর অংশটি একই সাথে মুদফ হিসাবে কাজ করে ও এই মুদফের জন্য একটি মুদফ… Continue reading জার্ মাজরূর এবং মুদফ ও মুদফ ইলাইহির সমন্বিত বাক্যাংশ

বাক্যাংশ-৩ বিশেষ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি

বিশেষ মুদফ বিশেষ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি বাক্যাংশ বুঝতে হলে প্রথমে বিশেষ মুদফ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। বিশেষ মুদফ হল এমন কিছু ইসম যা মূলত সময়/স্থান সম্পর্কিত এবং এই ইসমগুলো যখন অন্য কোন ইসমের পূর্বে আসে তখন পরবর্তী ইসমগুলোকে মুদফ ইলাইহি جَر (Status) অবস্থায় নিয়ে যায় অর্থাৎ জার্ ফর্ম/মাজরূর হয়। যদিও তাদের মধ্যে প্রকৃত মালিকানা… Continue reading বাক্যাংশ-৩ বিশেষ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি

বাক্যাংশ-৪ মাউসুফ সিফাহ 

মাউসুফ (مو صوف) একটি ইসম যার শাব্দিক অর্থ হল যার সম্পর্কে বর্ণনা করা হয়। মাউসুফ সিফাহ বাক্যাংশে মাউসুফ হল যার দোষ গুণ বর্ণনা করা হয়। অন্যদিকে যেসব শব্দ (ইসম) ব্যবহার করে মাউসুফের দোষ গুণ বর্ণনা করা হয়, ওই শব্দ(সমূহ) কে সিফাহ (صفة) বলে। যেমন নতুন কলমটি – এখানে কলম শব্দটি মাউসুফ অন্যদিকে নতুন শব্দটি সিফাহ… Continue reading বাক্যাংশ-৪ মাউসুফ সিফাহ 

মুদফ ও মুদফ ইলাইহি এবং মাউসুফ সিফাহর সমন্বিত বাক্যাংশ

একটি বাক্যের মধ্যে শুধুমাত্র একটি বাক্যাংশ থাকতে পারে আবার অন্য একটি/একাধিক বাক্যাংশের সাথে সমন্বিতভাবে/মিলিতভাবে (in an integrated way) থাকতে পারে। এই পোস্টে আমরা দেখবো মুদফ ও মুদফ ইলাইহি এবং মাউসুফ সিফাহ কিভাবে সমন্বিতভাবে থাকতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে আমরা দুইটি অবস্থা দেখতে পাবো। প্রথমত মুদফ একই সাথে মাউসুফ হিসাবে কাজ করে ও এই মাউসুফের জন্য একটি/একাধিক… Continue reading মুদফ ও মুদফ ইলাইহি এবং মাউসুফ সিফাহর সমন্বিত বাক্যাংশ

জার্ মাজরূর এবং মাউসুফ সিফাহর সমন্বিত বাক্যাংশ

একটি বাক্যের মধ্যে শুধুমাত্র একটি বাক্যাংশ থাকতে পারে আবার অন্য একটি/একাধিক বাক্যাংশের সাথে সমন্বিতভাবে (in an integrated way) থাকতে পারে। এই পোস্টে আমরা দেখবো জার্ মাজরূর এবং মাউসুফ সিফাহ কিভাবে সমন্বিতভাবে থাকতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে প্রথমে জার্ মাজরূর বাক্যাংশ আসে এবং মাজরূর অংশটি একই সাথে মাউসুফ হিসাবে কাজ করে ও এই মাউসুফের জন্য একটি/একাধিক সিফাহ… Continue reading জার্ মাজরূর এবং মাউসুফ সিফাহর সমন্বিত বাক্যাংশ

বাক্যাংশ-৫ হারফুন নাসব ও ইহার ইসম

হারফুন নাসব অনেকটা হরফে জারের মতো অর্থাৎ হারফুন নাসব একধরণের পদান্বয়ী অব্যয় যা কোন নির্দিষ্ট ইসমের স্ট্যাটাসকে নাসব ফর্মে/মানসুব করে দেয়।হরফে জারের সাথে হারফুন নাসবের পার্থক্য হল হরফে জারের পরের ইসমটির স্টেটাস জার্ ফর্ম/মাজরূর হবে অন্যদিকে হারফুন নাসবের পরে যেকোন জায়গায় ইসমটি আসতে পারে (পাশাপাশি আসা জরুরি নয়) এবং এই ইসমটির স্টেটাস নাসব ফর্ম/মানসুব হবে।… Continue reading বাক্যাংশ-৫ হারফুন নাসব ও ইহার ইসম

হারফুন নাসব ও ইহার ইসম এবং মুদফ ও মুদফ ইলাইহির সমন্বিত বাক্যাংশ

একটি বাক্যের মধ্যে শুধুমাত্র একটি বাক্যাংশ থাকতে পারে আবার অন্য একটি/একাধিক বাক্যাংশের সাথে সমন্বিতভাবে/মিলিতভাবে (in an integrated way) থাকতে পারে। এই পোস্টে আমরা দেখবো হারফুন নাসব ও ইহার ইসম বাক্যাংশের সাথে মুদফ ও মুদফ ইলাইহি কিভাবে সমন্বিতভাবে থাকতে পারে। এরকম ক্ষেত্রে প্রথমে হারফুন নাসব ও ইহার ইসম বাক্যাংশ আসে এবং ‘ ইহার ইসম ‘ অংশটি… Continue reading হারফুন নাসব ও ইহার ইসম এবং মুদফ ও মুদফ ইলাইহির সমন্বিত বাক্যাংশ

বাক্যাংশ-৬ ইসমুল ইশারা ও মুশারুন ইলাইহি

ইসমুল ইশারা / اسم الإشارة/Pointing words যে সমস্ত শব্দের দ্বারা কোন ব্যক্তি বা বস্তুর দিকে ইশারা করা হয় সে সমস্ত শব্দকে আরবীতে ইসমুল ইশারা (إِسْمُ الْاِشَارَةِ) বলা হয়। বেশিরভাগ ইসমুল ইশারাগুলো (দ্বিবচন ছাড়া) non-flexible অর্থাৎ রফা, নাসব এবং জার্ স্ট্যাটাসের জন্য দেখতে একইরকম হয়।কোরআনে বহুল ব্যবহৃত ইসমুল ইশারার তালিকা দেয়া হল:  মুশারুন ইলাইহি/مشار إليه মুশারুন ইলাইহি হলো –… Continue reading বাক্যাংশ-৬ ইসমুল ইশারা ও মুশারুন ইলাইহি

ইসমুল ইশারা ও মুশারুন ইলাইহির অন্য বাক্যাংশের সাথে সমন্বিত ব্যবহার

ইসমুল ইশারা ও মুশারুন ইলাইহি অন্য বাক্যাংশের সাথে সমন্বিতভাবে ব্যবহৃত হতে পারে। প্রথমে দেখবো জার্ মাজরূর এর সাথে কিভাবে ব্যবহৃত হয় : মুশারুন ইলাইহি মাজরূর/ইসমুল ইশারা হরফে জার্ বাংলা অর্থ সমন্বিত বাক্যাংশ الْقُرْآنِ هَٰذَا فِي এই কুরআনে فِي هَٰذَا الْقُرْآنِ الْحَدِيثِ هَٰذَا بِ এই নতুন বাণীতে بِهَٰذَا الْحَدِيثِ الْقُرْآنِ هَٰذَا بِ এই কুরআনে بِهَٰذَا الْقُرْآنِ … Continue reading ইসমুল ইশারা ও মুশারুন ইলাইহির অন্য বাক্যাংশের সাথে সমন্বিত ব্যবহার

যৌগিক বাক্যাংশ

যৌগিক বাক্যাংশ/Compound Fragment এর অধীনে আমরা দুইটি টপিক আলোচনা করবো ইন শা আল্লাহ :১. মাউসুফ ও যৌগিক সিফাহ/Mawsuf & Compound Sifah ২. ইসম মাওসুল ও সিলাহ/Ism Mawsul & Silah ১. মাউসুফ ও যৌগিক সিফাহ আমরা মাউসুফ ও সিফাহ বাক্যাংশে দেখেছি মাউসুফ হল যার দোষ গুণ বর্ণনা করা হয়। অন্যদিকে যেসব শব্দ (ইসম) ব্যবহার করে মাউসুফের… Continue reading যৌগিক বাক্যাংশ

হারফে আতফ, মা’তুফ ও মা’তুফ আলাইহি

হারফে আতফ  যে হারফ/অব্যয় দ্বারা দুটি ইসম বা দুটি ফি’ল বা দুটি বাক্য যুক্ত করা হয় সেসকল হারফ/অব্যয়কে বলে হারফে আতফ ।  ইংরেজীতে এইগুলিকে বলা হয় conjunction যেমন and, or, but ইত্যাদি। আরবি ব্যাকরণে conjunction/হারফে আতফ দশটি  و, فا, ثم ,حتي ,أَوْ , إما ,أم ,بل, لكن ,لا মা’তুফ/مَعْطُوْفٌ  হারফে আতফ যে ইসম, ফি’ল বা বাক্যকে যুক্ত করে তাদের… Continue reading হারফে আতফ, মা’তুফ ও মা’তুফ আলাইহি

হারফুন নিদা ও মুনাদা (পাঠ – ১)

হারফুন নিদা যে হরফ দ্বারা ডাকা হয় তাকে হারফুন নিদা/النداء বলে ।পবিত্র কুরআনুল কারীমে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হারফুন নিদা হলো يَا যার বাংলা অর্থ হলো হে/ওহে। মুনাদাঅপরদিকে, হারফুন নিদা দ্বারা যাকে ডাকা/সম্বোধন করা হয় তাকে মুনাদা/اَلْمُنَادَى বলা হয়। মুনাদা সর্বদা নির্দিষ্ট। পবিত্র কুরআনুল কারীমে হারফুন নিদা ও মুনাদার ব্যাপক ব্যবহার দেখা যায়। আমরা সহজতার জন্য… Continue reading হারফুন নিদা ও মুনাদা (পাঠ – ১)

হারফুন নিদা ও মুনাদা (পাঠ – ২)

আপনি যদি হারফুন নিদা ও মুনাদা (পাঠ – ১) না পড়ে থাকেন, এই লিংক থেকে পড়ে নিতে পারেন হারফুন নিদা যে হরফ দ্বারা ডাকা হয় তাকে হারফুন নিদা/النداء বলে ।পবিত্র কুরআনুল কারীমে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত হারফুন নিদা হলো يَا যার বাংলা অর্থ হলো হে/ওহে। মুনাদাঅপরদিকে, হারফুন নিদা দ্বারা যাকে ডাকা/সম্বোধন করা হয় তাকে মুনাদা/اَلْمُنَادَى বলা… Continue reading হারফুন নিদা ও মুনাদা (পাঠ – ২)

বাক্যাংশের উপর শেষ মন্তব্য/Conclusive remark on fragment

আরবি ব্যাকরণে বাক্যাংশের গুরুত্ব অপরিসীম। যেকোন ধরনের বাক্যই হোক না কেন, আপনি বাক্যাংশের ব্যবহার দেখতে পাবেন। অল্প কিছু ছোট এবং সরল বাক্য ছাড়া প্রায় সব বাক্যের মধ্যে বাক্যাংশ পাওয়া যাবে। এইজন্য বাক্যাংশ বুঝতে পারলে আপনার কুরআন বুঝার সফর/Journey অনেক সহজ হয়ে যাবে ইন শা আল্লাহ। বাক্যাংশের উপর অনেকগুলো পোস্টের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরণের বাক্যাংশ সম্পর্কে ধারণা… Continue reading বাক্যাংশের উপর শেষ মন্তব্য/Conclusive remark on fragment

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফাতিহা

সূরা আল ফাতিহা ، بِسْمِ اللَّـهِ الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ ، الْحَمْدُ لِلَّـهِ رَبِّ الْعَالَمِينَ ، الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ ، مَالِكِ يَوْمِ الدِّينِ ، إِيَّاكَ نَعْبُدُ وَإِيَّاكَ نَسْتَعِينُ ، اهْدِنَا الصِّرَاطَ الْمُسْتَقِيمَ ، صِرَاطَ الَّذِينَ أَنْعَمْتَ عَلَيْهِمْ غَيْرِ الْمَغْضُوبِ عَلَيْهِمْ وَلَا الضَّالِّينَ   শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু।যাবতীয় প্রশংসা আল্লাহ তাআলার যিনি সকল সৃষ্টি… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফাতিহা

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল আসর

সূরা আল আসর بِسْمِ اللَّـهِ الرَّحْمَـٰنِ الرَّحِيمِ وَالْعَصْرِ ١ إِنَّ الْإِنْسَانَ لَفِي خُسْرٍ ٢ إِلَّا الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ وَتَوَاصَوْا بِالْحَقِّ وَتَوَاصَوْا بِالصَّبْرِ٣ কসম যুগের (সময়ের), নিশ্চয় মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত; কিন্তু তারা নয়, যারা বিশ্বাস স্থাপন করে ও সৎকর্ম করে এবং পরস্পরকে তাকীদ করে সত্যের এবং তাকীদ করে সবরের। নিচের টেবিলে সূরা আল আসরের মধ্যে পাওয়া… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল আসর

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল হুমাযাহ

সূরা আল হুমাযাহ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ  وَيْلٌ لِّكُلِّ هُمَزَةٍ لُّمَزَةٍ ، الَّذِي جَمَعَ مَالًا وَعَدَّدَهُ‏ ،  يَحْسَبُ أَنَّ مَالَهُ أَخْلَدَهُ ‎‏  كَلَّا ۖ لَيُنبَذَنَّ فِي الْحُطَمَةِ ، وَمَا أَدْرَاكَ مَا الْحُطَمَةُ ‎‏‎‏  نَارُ اللَّهِ الْمُوقَدَةُ ، الَّتِي تَطَّلِعُ عَلَى الْأَفْئِدَةِ‏‎ إِنَّهَا عَلَيْهِم مُّؤْصَدَةٌ ‏، فِي عَمَدٍ مُّمَدَّدَةٍ ‏ ধিক্ প্রত্যেক নিন্দাকারী কুৎসারটনাকারীর প্রতি। যে ধনসম্পদ জমা করছে এবং তা গুনছে। সে ভাবছে যে তার ধনসম্পত্তি… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল হুমাযাহ

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফীল

সূরা আল ফীল بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ  أَلَمْ تَرَ كَيْفَ فَعَلَ رَبُّكَ بِأَصْحَابِ الْفِيلِ ، أَلَمْ يَجْعَلْ كَيْدَهُمْ فِي تَضْلِيلٍ وَأَرْسَلَ عَلَيْهِمْ طَيْرًا أَبَابِيلَ ، ‏تَرْمِيهِم بِحِجَارَةٍ مِّن سِجِّيلٍ   ‏ فَجَعَلَهُمْ كَعَصْفٍ مَّأْكُولٍ তুমি কি দেখো নি তোমার প্রভু কেমন করেছিলেন হস্তি-বাহিনীর প্রতি? তাদের চক্রান্ত তিনি কি ব্যর্থতায় পর্যবসিত করেন নি? আর তাদের উপরে তিনি… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফীল

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কুরাইশ

সূরা আল কুরাইশ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ لِإِيلَافِ قُرَيْشٍ ‏  ، إِيلَافِهِمْ رِحْلَةَ الشِّتَاءِ وَالصَّيْفِ‏ فَلْيَعْبُدُوا رَبَّ هَٰذَا الْبَيْتِ ، الَّذِي أَطْعَمَهُم مِّن جُوعٍ وَآمَنَهُم مِّنْ خَوْفٍ শুরু করছি আল্লাহর নামে যিনি পরম করুণাময়, অতি দয়ালু। কুরাইশদের নিরাপত্তার জন্য , শীতকালীন ও গ্রীকালীন বিদেশযাত্রায় তাদের নিরাপত্তার জন্য।অতএব তারা এই গৃহের প্রভুর উপাসনা করুক যিনি ক্ষুধায়… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কুরাইশ

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল মাউন

সূরা আল মাউন بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ فَذَٰلِكَ الَّذِي يَدُعُّ الْيَتِيمَ ‎ أَرَأَيْتَ الَّذِي يُكَذِّبُ بِالدِّينِ  فَوَيْلٌ لِّلْمُصَلِّينَ  وَلَا يَحُضُّ عَلَىٰ طَعَامِ الْمِسْكِينِ  الَّذِينَ هُمْ يُرَاءُونَ  الَّذِينَ هُمْ عَن صَلَاتِهِمْ سَاهُونَ ‎ وَيَمْنَعُونَ الْمَاعُونَ  তুমি কি তাকে দেখেছ যে ধর্মকর্মকে প্রত্যাখান করে? সে তো ঐ জন যে এতীমদের হাঁকিয়ে দেয়। আর গরীব-দুঃখীকে খাওয়ানোর ক্ষেত্রে উৎসাহ… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল মাউন

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কাওসার

সূরা আল কাওসার بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ فَصَلِّ لِرَبِّكَ وَانْحَرْ  إِنَّا أَعْطَيْنَاكَ الْكَوْثَرَ   إِنَّ شَانِئَكَ هُوَ الْأَبْتَرُ  নিঃসন্দেহ আমরা তোমাকে প্রাচুর্য দিয়েছি। সুতরাং তোমার প্রভুর উদ্দেশ্যে নামায আদায় করো এবং কুরবানি করো। তোমার বিদ্বেষকারীই তো স্বয়ং বঞ্চিত। নিচের টেবিলে সূরা আল কাওসারের মধ্যে পাওয়া বাক্যাংশগুলোর নাম তাদের বাংলা অর্থসহ দেয়া হলো : বাক্যাংশের নাম বাংলা… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কাওসার

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কাফিরুন

সূরা আল কাফিরুন بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ لَا أَعْبُدُ مَا تَعْبُدُونَ  قُلْ يَا أَيُّهَا الْكَافِرُونَ  وَلَا أَنَا عَابِدٌ مَّا عَبَدتُّمْ  وَلَا أَنتُمْ عَابِدُونَ مَا أَعْبُدُ  لَكُمْ دِينُكُمْ وَلِيَ دِينِ  وَلَا أَنتُمْ عَابِدُونَ مَا أَعْبُدُ  বলুন, হে কাফেরকূল । আমি এবাদত করিনা, তোমরা যার এবাদত কর। এবং তোমরাও এবাদতকারী নও, যার এবাদত আমি করি। এবং আমি… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল কাফিরুন

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল নাসর

সূরা আল নাসর بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ إِذَا جَاءَ نَصْرُ اللَّهِ وَالْفَتْحُ  وَرَأَيْتَ النَّاسَ يَدْخُلُونَ فِي دِينِ اللَّهِ أَفْوَاجًا  فَسَبِّحْ بِحَمْدِ رَبِّكَ وَاسْتَغْفِرْهُ ۚ إِنَّهُ كَانَ تَوَّابًا যখন আল্লাহর সাহায্য ও বিজয় আসবে । এবং আপনি মানুষকে দলে দলে আল্লাহর দ্বীনে প্রবেশ করতে দেখবেন । তখন আপনি আপনার পালনকর্তার পবিত্রতা বর্ণনা করুন এবং তাঁর কাছে… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল নাসর

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল মাসাদ

সূরা আল মাসাদ بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ مَا أَغْنَىٰ عَنْهُ مَالُهُ وَمَا كَسَبَ  تَبَّتْ يَدَا أَبِي لَهَبٍ وَتَبَّ  وَامْرَأَتُهُ حَمَّالَةَ الْحَطَبِ  سَيَصْلَىٰ نَارًا ذَاتَ لَهَبٍ فِي جِيدِهَا حَبْلٌ مِّن مَّسَدٍ  আবু লাহাবের হস্তদ্বয় ধ্বংস হোক এবং ধ্বংস হোক সে নিজে। কোন কাজে আসেনি তার ধন-সম্পদ ও যা সে উপার্জন করেছে। সত্বরই সে প্রবেশ করবে লেলিহান… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল মাসাদ

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ইখলাস

সূরা আল ইখলাস بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ  اللَّهُ الصَّمَدُ  قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ  وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ  لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ  বলুন, তিনি আল্লাহ, এক। আল্লাহ অমুখাপেক্ষী। তিনি কাউকে জন্ম দেননি এবং কেউ তাকে জন্ম দেয়নি। এবং তার সমতুল্য কেউ নেই। নিচের টেবিলে সূরা আল ইখলাসের মধ্যে পাওয়া বাক্যাংশগুলোর নাম তাদের বাংলা অর্থসহ দেয়া… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ইখলাস

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফালাক

সূরা আল ফালাক بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ مِن شَرِّ مَا خَلَقَ  قُلْ أَعُوذُ بِرَبِّ الْفَلَقِ وَمِن شَرِّ النَّفَّاثَاتِ فِي الْعُقَدِ  وَمِن شَرِّ غَاسِقٍ إِذَا وَقَبَ  وَمِن شَرِّ حَاسِدٍ إِذَا حَسَدَ  বাক্যাংশের নাম বাংলা অর্থ বাক্যাংশ জার্ মাজরূর/মুদফ ও মুদফ ইলাইহি প্রভাতের পালনকর্তার কাছে بِرَبِّ الْفَلَقِ জার্ মাজরূর অনিষ্ট থেকে مِن شَرِّ জার্ মাজরূর/মুদফ ও মুদফ… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল ফালাক

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল নাস

সূরা আল নাস بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ إِلَٰهِ النَّاسِ  مَلِكِ النَّاسِ ‎‏ قُلْ أَعُوذُ بِرَبِّ النَّاسِ  الَّذِي يُوَسْوِسُ فِي صُدُورِ النَّاسِ مِن شَرِّ الْوَسْوَاسِ الْخَنَّاسِ  مِنَ الْجِنَّةِ وَالنَّاسِ বাক্যাংশের নাম বাংলা অর্থ বাক্যাংশ জার্ মাজরূর/মুদফ ও মুদফ ইলাইহি মানুষের প্রভুর কাছে بِرَبِّ النَّاسِ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি মানুষের মালিকের مَلِكِ النَّاسِ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি মানুষের… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-সূরা আল নাস

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-নামাজের ছানা

নামাজের ছানা سُبْحَانَكَ اللَّهُمَّ وَبِحَمْدِكَ وَتَبَارَكَ اسْمُكَ وَتَعَالَى جَدُّكَ وَلاَ إِلَهَ غَيْرُكَ হে আল্লাহ! তোমার প্রশংসার সাথে তোমার পবিত্রতা বর্ণনা করছি। তোমার নাম চির বরকতময়, সকলের শীর্ষে তোমার মর্যাদা, তুমি ছাড়া কোন মাবুদ নেই। নিচের টেবিলে নামাজের ছানার মধ্যে পাওয়া বাক্যাংশগুলোর নাম তাদের বাংলা অর্থসহ দেয়া হলো : বাক্যাংশের নাম বাংলা অর্থ বাক্যাংশ মুদফ ও… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-নামাজের ছানা

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-তাশাহুদ

তাশাহুদ/Tashahhud التَّحِيَّاتُ لِلَّهِ وَالصَّلَوَاتُ وَالطَّيِّبَاتُ، السَّلاَمُ عَلَيْكَ أَيُّهَا النَّبِيُّ وَرَحْمَةُ اللَّهِ وَبَرَكَاتُهُ، السَّلاَمُ عَلَيْنَا وَعَلَى عِبَادِ اللَّهِ الصَّالِحِينَ، أَشْهَدُ أَنْ لاَ إِلَهَ إِلاَّ اللَّهُ وَأَشْهَدُ أَنَّ مُحَمَّدًا عَبْدُهُ وَرَسُولُهُ যাবতীয় সম্মান, যাবতীয় উপাসনা ও যাবতীয় পবিত্র বিষয় আল্লাহর জন্য। হে নবী! আপনার উপর শান্তি বর্ষিত হোক এবং আল্লাহর অনুগ্রহ ও সমৃদ্ধি সমূহ নাযিল হোক। শান্তি… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-তাশাহুদ

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-দুরুদ শরীফ

দুরুদ শরীফ اللَّهُمَّ صَلِّ عَلَى مُحَمَّدٍ وَعَلَى آلِ مُحَمَّدٍ، كَمَا صَلَّيْتَ عَلَى إِبْرَاهِيمَ وَعَلَى آلِ إِبْرَاهِيمَ، إِنَّكَ حَمِيدٌ مَجِيدٌ، اللَّهُمَّ بَارِكْ عَلَى مُحَمَّدٍ وَعَلَى آلِ مُحَمَّدٍ، كَمَا بَارَكْتَ عَلَى إِبْرَاهِيمَ وَعَلَى آلِ إِبْرَاهِيمَ، إِنَّكَ حَمِيدٌ مَجِيدٌ হে আল্লাহ! তুমি মুহাম্মাদ (সাল্লাল্লাহু ‘আলাইহি ওয়া সাল্লাম) ও তাঁর বংশধরের প্রতি রহমত নাযিল করো যেমন রহমত নাযিল করেছিলে ইবরাহীম… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-দুরুদ শরীফ

বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-দুয়া মাসুরা

দুয়া মাসুরা اللّٰهُمَّ إِنِّيْ ظَلَمْتُ نَفْسِيْ ظُلْمْاً كَثِيْراً ، وَلاَ يَغْفِرُ الذُّنُوْبَ إِلاَّ أَنْتَ ، فَاغْفِرْ لِيْ مَغْفِرَةً مِنْ عِنْدِكَ وَارْحَمْنِي ، إِنَّكَ أَنْتَ الغَفُوْرُ الرَّحِيْمُ হে আল্লাহ ! নিশ্চয় আমি আমার নিজ আত্মার উপর বড় অত্যাচার করেছি, আপনি ছাড়া গুনাহ মাফকারী কেউ নেই । অতএব আপনি আপনা হতেই আমাকে সম্পূর্ণ ক্ষমা করুন এবং আমার… Continue reading বাক্যাংশ সনাক্তকরণ-দুয়া মাসুরা

জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্যের প্যাটার্ন

জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্যের প্যাটার্ন গত পোস্টে দেখেছিলাম একটি জুমলা ইসমিয়ার মধ্যে সাধারণত তিনটি উপাদান থাকতে পারে। যথা ১ মুবতাদা ২ খবর ৩ মুতাআল্লিক বিল খবর উপরে বর্ণিত উপাদানগুলো যেকোন ক্রম অনুসরণ করে আসতে পারে। আমরা বুঝার সুবিধাৰ্থে নিম্নলিখিত প্যাটার্ন হিসাবে মনে রাখতে পারি : – খবর মুবতাদা প্যাটার্ন-১ মুতাআল্লিক বিল খবর মুবতাদা প্যাটার্ন-২ – মুবতাদা… Continue reading জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্যের প্যাটার্ন

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-১ : মুবতাদা + খবর

প্যাটার্ন-১ : মুবতাদা + খবর এই প্যাটার্নের বাক্যের বৈশিষ্ট্য হল এখানে দুইটি অংশ থাকবে যথা মুবতাদা ও খবর। মুবতাদা একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশও ও হতে পারে। একইভাবে খবর একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশও ও হতে পারে।সাধারণত ছোট ছোট জুমলা ইসমিয়া বা নামমাত্র বাক্য তৈরিতে এই প্যাটার্ন ব্যবহৃত হয়। পবিত্র কুরআনুল… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-১ : মুবতাদা + খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-২ : মুবতাদা + মুতাআল্লিক বিল খবর

প্যাটার্ন-২ : মুবতাদা + মুতাআল্লিক বিল খবর এই প্যাটার্নের বাক্যের বৈশিষ্ট্য হল এখানে দুইটি অংশ থাকবে যথা মুবতাদা ও মুতাআল্লিক বিল খবর। মুবতাদা একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশ ও হতে পারে। মুতাআল্লিক বিল খবর সর্বদা একটি জার্ মাজরূর অথবা বিশেষ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি বাক্যাংশ দিয়ে হবে। এই ধরণের বাক্যের মধ্যে খবর উহ্য… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-২ : মুবতাদা + মুতাআল্লিক বিল খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৩: মুতাআল্লিক বিল খবর+মুবতাদা

প্যাটার্ন-৩ : মুতাআল্লিক বিল খবর+মুবতাদা এই প্যাটার্নের বাক্যের বৈশিষ্ট্য হল এখানে দুইটি অংশ থাকবে যথা মুতাআল্লিক বিল খবর ও মুবতাদা। তবে শর্ত হচ্ছে মুতাআল্লিক বিল খবর মুবতাদার আগে আসবে। মুতাআল্লিক বিল খবর সর্বদা একটি জার্ মাজরূর অথবা বিশেষ মুদফ ও মুদফ ইলাইহি বাক্যাংশ দিয়ে শুরু হবে।অন্যদিকে, মুবতাদা একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশও হতে… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৩: মুতাআল্লিক বিল খবর+মুবতাদা

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৪: মুবতাদা+খবর+মুতাআল্লিক বিল খবর

প্যাটার্ন-৪: মুবতাদা + খবর + মুতাআল্লিক বিল খবর জুমলা ইসমিয়া বাক্যের জন্য এই প্যাটার্নটি একটি স্ট্যান্ডার্ড প্যাটার্ন। এই প্যাটার্নের বাক্যের বৈশিষ্ট্য হল এখানে তিনটি অংশ ধারাবাহিকভাবে থাকবে যথা মুবতাদা, খবর ও মুতাআল্লিক বিল খবর। মুবতাদা একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশ ও হতে পারে। একইভাবে খবর একটি ইসম হতে পারে আবার একটি বাক্যাংশ ও… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৪: মুবতাদা+খবর+মুতাআল্লিক বিল খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৫: মুবতাদা+মুতাআল্লিক বিল খবর+খবর

প্যাটার্ন-৫: মুবতাদা+মুতাআল্লিক বিল খবর+খবর জুমলা ইসমিয়া বাক্যের এই প্যাটার্নটি কিছুটা প্যাটার্ন-৪ এর মতো অর্থাৎ এখানে তিনটি অংশ যথা মুবতাদা, খবর ও মুতাআল্লিক বিল খবর থাকে। পার্থক্য হল ধারাবাহিকতার। প্যাটার্ন-৫ এ মুবতাদার পর খবর না এসে মুতাআল্লিক বিল খবর আগে চলে আসে তারপর খবর আসে। মুতাআল্লিক বিল খবর আগে চলে আসার একটা কারণ হল বাক্যটিকে অধিক… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৫: মুবতাদা+মুতাআল্লিক বিল খবর+খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৬: মুবতাদা+খবর+খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৬: মুবতাদা+খবর+খবর জুমলা ইসমিয়া বাক্যের এই প্যাটার্নটি কিছুটা প্যাটার্ন-১ এর মতো অর্থাৎ এখানে মুবতাদা ও খবর থাকে। পার্থক্য হল এখানে একটি অতিরিক্ত খবর আসে অর্থাৎ মুবতাদার পর দুটি খবর পরপর আসে। পাশাপাশি বসা খবর দুটিকে মাউসুফ ও সিফাহর মতো মনে হলেও প্রকৃতপক্ষে দুটি সিফাহ হিসাবে বাক্যের মুবতাদাকে বিশেষায়িত করে এবং একটি বাক্য… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৬: মুবতাদা+খবর+খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৭: মুবতাদা (সর্বনাম)+খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৭: মুবতাদা (সর্বনাম)+খবর জুমলা ইসমিয়া বাক্যের এই প্যাটার্নটি কিছুটা প্যাটার্ন-১ এর মতো অর্থাৎ এখানে মুবতাদা ও খবর থাকে। পার্থক্য হল এখানে মুবতাদার পর একটি অতিরিক্ত সর্বনাম আসে যা বাক্যের উপর জোর দেওয়ার জন্য মুবতাদার প্রতিশব্দ হিসেবে কাজ করে। তাছাড়া কিছু কিছু ক্ষেত্রে এই অতিরিক্ত সর্বনামটি বিভাজক হিসেবে না এলে বাক্যটি বাক্যাংশ-৬ (ইসমুল… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন-৭: মুবতাদা (সর্বনাম)+খবর

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন -৮ : বিবিধ

জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন -৮ : বিবিধ আমরা ইতিমধ্যে নামমাত্র বাক্যের সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ৭ টি প্যাটার্ন নিয়ে আলোচনা করেছি। পূর্বোক্ত ৭ টি প্যাটার্ন ব্যতীত, আমরা নামমাত্র বাক্যের যে প্যাটার্নই পাই, আমরা সেগুলিকে বিবিধ প্যাটার্ন হিসাবে বিবেচনা করব।বিবিধ প্যাটার্ন মূলত পূর্বোক্ত ৭ টি প্যাটার্নের কিছুটা পরিবর্তিত রূপ।যেমন একটি মুবতাদার সাথে হার্ফে আতফের মাধ্যমে একাধিক মুবতাদা… Continue reading জুমলা ইসমিয়া বাক্যের প্যাটার্ন -৮ : বিবিধ

মিশ্র বাক্য-১

যে বাক্যে জুমলা ইসমিয়া এবং জুমলা ফিলিয়া মিলে একটি পূর্ণ বাক্য তৈরি করে তাকে মিশ্র বাক্য বলা হয়। মিশ্র বাক্য দুই প্রকার : খবর (জুমলা ফিলিয়া) মুবতাদা يُحِبُّ الْمُحْسِنِينَ إِنَّ اللَّهَ অনুগ্রহকারীদেরকে ভালবাসেন নিশ্চয়ই আল্লাহ্ মাফউল (জুমলা ইসমিয়া) ফি’ল هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ قُلْ তিনি আল্লাহ্‌, একক-অদ্বিতীয় বলো এই পোস্টে, আমরা পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে কিছু না-বোধক… Continue reading মিশ্র বাক্য-১

Published
Categorized as Nahw

লাইসার/لَيْسَ মাধ্যমে জুমলা ইসমিয়ার না-বোধক বাক্য গঠন

লাইসা/لَيْسَ বলতে কী বুঝায় ? লাইসা/لَيْسَ শব্দটি (ফি’লটি) আরবি ব্যাকরণে অনন্য। কারণ এতে ফি’লের মত কিছু বৈশিষ্ট্য থাকলেও এটি নিয়মিত ফি’ল নয়। ইংরেজি ব্যাকরণের auxiliary verb am/is/are not প্রকাশ করতে লাইসা/لَيْسَ ও এর অন্যান্য ফর্ম ব্যবহার করা হয়। আরবি ব্যাকরণের একটি নিয়মিত ফি’লের মতো, لَيْسَ এর অতীত কালের ১৪ টি ফর্ম রয়েছে। যদিও অতীত কালের… Continue reading লাইসার/لَيْسَ মাধ্যমে জুমলা ইসমিয়ার না-বোধক বাক্য গঠন

পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে لَيْسَ/লাইসার উদাহরণ

لَيْسَ/লাইসার মাধ্যমে বর্তমান কালের জুমলা ইসমিয়াকে না-বোধক করা হয়।লাইসার ব্যবহার সহজে বোঝার জন্য, আমরা তিনটি প্যাটার্ন অনুসরণ করে শিখবো ইন শা আল্লাহ : প্যাটার্ন -১ : ইসম লাইসা + খবর লাইসা (بِ এর মাধ্যমে গঠিত জার্ -মাজরূর) খবর লাইসা ইসম লাইসা بِأَحْكَمِ الْحَاكِمِينَ  أَلَيْسَ اللَّهُ বিচারকদের মধ্যে সর্বশ্রেষ্ঠ বিচারক আল্লাহ্ কি নন? بِالْحَقِّ أَلَيْسَ هَٰذَا … Continue reading পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে لَيْسَ/লাইসার উদাহরণ

লান না-ফিয়াতু লিল জিন্স/ لا النَّافِيَةُ لِلْجِنْسِ

লান না-ফিয়াতু লিল জিন্স বলতে কী বুঝায় ? লান না-ফিয়াতু লিল জিন্স/Absolute Categorical Negation হলো এক বিশেষ ধরণের না-বোধক জুমলা ইসমিয়ার বাক্যের প্যাটার্ন। এই ধরণের বাক্যের দ্বারা চূড়ান্ত পর্যায়ের না বোঝানো হয় যার কোনো ব্যতিক্রম নেই। সাধারণ পর্যায়ের না-বোধক বাক্যের ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম হতে পারে। উদাহরণস্বরূপ, কেউ ডায়েটে রয়েছে। তিনি যখন তার বন্ধুর বাড়িতে গেলেন, তখন… Continue reading লান না-ফিয়াতু লিল জিন্স/ لا النَّافِيَةُ لِلْجِنْسِ

ছারফ/Sarf সম্পর্কে পরিচিতিমূলক আলোচনা

ছারফ/Sarf আরবি ব্যাকরণের একটি গুরুত্বপূর্ণ শাখা যা Verb/ফি’ল/ক্রিয়াপদ ফর্ম এবং কংজুগেশন/Conjugation এর অধ্যয়ন নিয়ে কাজ করে। আরবি ভাষায়, ক্রিয়াপদ মূলত তিনটি মূল বর্ণ/Root Letters এবং কিছু কিছু ক্ষেত্রে চারটি মূল বর্ণের সমন্বয়ে তৈরি হয় এবং মূল বর্ণগুলির নির্দিষ্ট সমন্বয় ও ফ্যামিলির উপর নির্ভর করে ক্রিয়ার অর্থ পরিবর্তিত হয়। উদাহরণস্বরূপ, মূল বর্ণসমূহ/Root Letters ك ت ب… Continue reading ছারফ/Sarf সম্পর্কে পরিচিতিমূলক আলোচনা

ছারফ/Sarf শিখার পূর্বশর্ত

প্রথমত ছারফ/Sarf শিখার জন্য আমাদের Root Letters সম্পর্কে পরিষ্কার ধারণা থাকতে হবে। Root Letters বেশ সহজ একটি বিষয়। প্রতিটি ফি’লের/ক্রিয়ার মধ্যে তিনটি Root Letters আছে। তবে অল্প কিছু ব্যতিক্রম ফি’ল আছে যার মধ্যে চারটি Root Letters রয়েছে যা আমরা আপাতত আলোচনার মধ্যে বিবেচনা করবোনা। এই তিনটি Root Letters আরবী বর্ণমালার ২৮ টি হরফের (أ ب… Continue reading ছারফ/Sarf শিখার পূর্বশর্ত

ফ্যামিলিগুলোর নাম সহজে মনে রাখার উপায়

ফ্যামিলি -১ /ছোট ফ্যামিলির অন্তর্ভুক্ত ৬ টি সদস্য এই ছোট ফ্যামিলিগুলো বাস্তবেই কিছুটা ছোট কারণ এই ফ্যামিলির প্রথম সদস্যের ফি’লগুলোতে Root Letters/মূল বর্ণের বাইরে কোনো অতিরিক্ত হরফ থাকেনা। নিচের গল্পটির মাধ্যমে ফ্যামিলি -১ /ছোট ফ্যামিলির অন্তর্ভুক্ত ৬ টি সদস্য সহজে মনে রাখতে পারি : ঘুমানোর পূর্বে একজন ঈমানদার ঘরের জানালা খুলল (فَتَحَ) আর স্থির দৃষ্টিতে… Continue reading ফ্যামিলিগুলোর নাম সহজে মনে রাখার উপায়

ফ্যামিলিগুলোর মধ্যে মিল ও অমিল

ফ্যামিলিগুলোর মধ্যে কিছু মিল ও অমিল আছে যা লক্ষ্য করলে খুব সহজে ফ্যামিলিগুলো আমরা মনে রাখতে পারি। চলুন নিচের টেবিলে থেকে ব্যাপারটা বুঝার চেষ্টা করি : ফ্যামিলির নাম Root Letters প্রথম সদস্য মন্তব্য ফ্যামিলি -১ ف ع ل فَعَلَ গঠনগত মিলের কারণে ফ্যামিলি ১ এর একটি উদাহরণ নেয়া হল ফ্যামিলি -২ ف ع ل فَعَّلَ… Continue reading ফ্যামিলিগুলোর মধ্যে মিল ও অমিল

ফ্যামিলির গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের পরিচিতি

“ফ্যামিলি” নামটি শুনলে আমাদের মাথায় কিছু সদস্যদের নাম চলে আসে যেমন মা, বাবা, ভাই, বোন , দাদা, দাদি, নাতি, নাতনী ইত্যাদি। আরবি ব্যাকরণেও প্রতিটা ফ্যামিলির কিছু কমন সদস্য আছে। যেহেতু পরিবারের প্রতিটি সদস্য একই পরিমান ভূমিকা পালন করেনা, তাই এই পোস্টে আমরা প্রতিটা ফ্যামিলির গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের সাথে পরিচিত হব ইন শা আল্লাহ । উদাহরণ হিসেবে… Continue reading ফ্যামিলির গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের পরিচিতি

আরবি ব্যাকরণে কাল/Tense এর ধারণা

আরবি ব্যাকরণে কালের ধারণা তুলনামূলকভাবে অনেক সহজ। এখানে ফি’লগুলো(Action Verb) দুটি ভাগে বিভক্ত।১ Perfect/অতীত (কাজটি শেষ)২ Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত (কাজটি এখনো শেষ হয়নি) অর্থাৎ আপনি যেকোন একটি Point of time থেকে চিন্তা করবেন কাজটি কি শেষ অথবা এখনো বাকি আছে। যদি কাজটি শেষ হয়ে থাকে তাহলে Perfect/অতীত কাল। আর যদি কাজটি শেষ না হয়ে থাকে… Continue reading আরবি ব্যাকরণে কাল/Tense এর ধারণা

ফ্যামিলি-১ فَتَحَ (Perfect/অতীত কাল)

প্রথম ধাপে আমরা প্রতিটা ফ্যামিলির প্রথম এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সম্পর্কে বিস্তারিত শিখবো। প্রথম সদস্য হল Perfect/অতীতকালের ১৪ টি ফর্ম । ১৪ টি ফর্ম আসার কারণ ১৪ টি সর্বনাম। নিচের টেবিল থেকে আমরা ফ্যামিলি -১ (فَتَحَ) এর অন্তুর্ভুক্ত ১ টি ফি’লের জন্য ১৪ টি Perfect/অতীতকালের ফর্ম বানানো দেখবো : ফি’ল -১ : فَتَحَ বিজয় করা… Continue reading ফ্যামিলি-১ فَتَحَ (Perfect/অতীত কাল)

فَعَلَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল-২ : فَعَلَ করা বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ فَعَلُوْا هُمَا فَعَلَا هُوَ فَعَلَ তারা করেছে তারা (দুজন) করেছে সে করেছে هُنَّ فَعَلْنَ هُمَا فَعَلَتَا هِيَ فَعَلَتْ তারা করেছে তারা (দুজন) করেছে সে করেছে أَنْتُمْ فَعَلْتُمْ أَنْتُمَا فَعَلْتُمَا أَنْتَ فَعَلْتَ তোমরা করেছো তোমরা (দুজন) করেছো তুমি করেছো أَنْتُنَّ فَعَلْتُنَّ أَنْتُمَا فَعَلْتُمَا أَنْتِ فَعَلْتِ তোমরা করেছো তোমরা… Continue reading فَعَلَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল -১ : فَتَحَ বিজয় করা

বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ فَتَحُوْا هُمَا فَتَحَا هُوَ فَتَحَ তারা বিজয় করেছে তারা (দুজন) বিজয় করেছে সে বিজয় করেছে هُنَّ فَتَحْنَ هُمَا فَتَحَتَا هِيَ فَتَحَتْ তারা বিজয় করেছে তারা (দুজন) বিজয় করেছে সে বিজয় করেছে أَنْتُمْ فَتَحْتُمْ أَنْتُمَا فَتَحْتُمَا أَنْتَ فَتَحْتَ তোমরা বিজয় করেছো তোমরা (দুজন) বিজয় করেছো তুমি বিজয় করেছো أَنْتُنَّ فَتَحْتُنَّ أَنْتُمَا فَتَحْتُمَا… Continue reading ফি’ল -১ : فَتَحَ বিজয় করা

بَعَثَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল -৩ : بَعَثَ উন্নীত করা বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ بَعَثُوْا هُمَا بَعَثَا هُوَ بَعَثَ তারা উন্নীত করেছে তারা (দুজন) উন্নীত করেছে সে উন্নীতকরেছে هُنَّ بَعَثْنَ هُمَا بَعَثَتَا هِيَ بَعَثَتْ তারা উন্নীত করেছে তারা (দুজন) উন্নীত করেছে সে উন্নীত করেছে أَنْتُمْ بَعَثْتُمْ أَنْتُمَا بَعَثْتُمَا أَنْتَ بَعَثْتَ তোমরা উন্নীত করেছো তোমরা (দুজন) উন্নীত করেছো তুমি উন্নীত… Continue reading بَعَثَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

جَعَلَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল -৪ : جَعَلَ তৈরি করা বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ جَعَلُوْا هُمَا جَعَلَا هُوَ جَعَلَ তারা তৈরি করেছে তারা (দুজন) তৈরি করেছে সে তৈরি করেছে هُنَّ جَعَلْنَ هُمَا جَعَلَتَا هِيَ جَعَلَتْ তারা তৈরি করেছে তারা (দুজন) তৈরি করেছে সে তৈরি করেছে أَنْتُمْ جَعَلْتُمْ أَنْتُمَا جَعَلْتُمَا أَنْتَ جَعَلْتَ তোমরা তৈরি করেছো তোমরা (দুজন) তৈরি করেছো তুমি… Continue reading جَعَلَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

جَمَعَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল -৫ : جَمَعَ একত্রিত করা বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ جَمَعُوْا هُمَا جَمَعَا هُوَ جَمَعَ তারা একত্রিত করেছে তারা (দুজন) একত্রিত করেছে সে একত্রিত করেছে هُنَّ جَمَعْنَ هُمَا جَمَعَتَا هِيَ جَمَعَتْ তারা একত্রিত করেছে তারা (দুজন) একত্রিত করেছে সে একত্রিত করেছে أَنْتُمْ جَمَعْتُمْ أَنْتُمَا جَمَعْتُمَا أَنْتَ جَمَعْتَ তোমরা একত্রিত করেছো তোমরা (দুজন) একত্রিত করেছো তুমি… Continue reading جَمَعَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ذَهَبَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল -৬ : ذَهَبَ যাওয়া বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ ذَهَبُوْا هُمَا ذَهَبَا هُوَ ذَهَبَ তারা গিয়েছে তারা (দুজন) গিয়েছে সে গিয়েছে هُنَّ ذَهَبْنَ هُمَا ذَهَبَتَا هِيَ ذَهَبَتْ তারা গিয়েছ তারা (দুজন) গিয়েছে সে গিয়েছে أَنْتُمْ ذَهَبْتُمْ أَنْتُمَا ذَهَبْتُمَا أَنْتَ ذَهَبْتَ তোমরা গিয়েছ তোমরা (দুজন) গিয়েছ তুমি গিয়েছ أَنْتُنَّ ذَهَبْتُنَّ أَنْتُمَا ذَهَبْتُمَا أَنْتِ ذَهَبْتِ তোমরা গিয়েছ… Continue reading ذَهَبَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

رَفَعَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল-৭ : رَفَعَ উঠানো বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ رَفَعُوْا هُمَا رَفَعَا هُوَ رَفَعَ তারা উঠিয়েছে তারা (দুজন) উঠিয়েছে সে উঠিয়েছে هُنَّ رَفَعْنَ هُمَا رَفَعَتَا هِيَ رَفَعَتْ তারা উঠিয়েছে তারা (দুজন) উঠিয়েছে সে উঠিয়েছে أَنْتُمْ رَفَعْتُمْ أَنْتُمَا رَفَعْتُمَا أَنْتَ رَفَعْتَ তোমরা উঠিয়েছ তোমরা (দুজন) উঠিয়েছ তুমি উঠিয়েছ أَنْتُنَّ رَفَعْتُنَّ أَنْتُمَا رَفَعْتُمَا أَنْتِ رَفَعْتِ তোমরা উঠিয়েছ তোমরা… Continue reading رَفَعَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ضَرَبَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের প্যাসিভ ১৪টি ফর্ম

বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ ضُرِبُوْا هُمَا ضُرِبَا هُوَ ضُرِبَ তাদেরকে আঘাত করা হয়েছে তাদের (দুজনকে) আঘাত করা হয়েছে তাকে আঘাত করা হয়েছে هُنَّ ضُرِبْنَ هُمَا ضُرِبَتَا هِيَ ضُرِبَتْ তাদেরকে আঘাত করা হয়েছে তাদের (দুজনকে) আঘাত করা হয়েছে তাকে আঘাত করা হয়েছে أَنْتُمْ ضُرِبْتُمْ أَنْتُمَا ضُرِبْتُمَا أَنْتَ ضُرِبْتَ তোমাদেরকে  আঘাত করা হয়েছে তোমাদের  (দুজনকে) আঘাত করা হয়েছে তোমাকে আঘাত করা হয়েছে أَنْتُنَّ ضُرِبْتُنَّ أَنْتُمَا ضُرِبْتُمَا أَنْتِ ضُرِبْتِ তোমাদেরকে  আঘাত করা হয়েছে… Continue reading ضَرَبَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের প্যাসিভ ১৪টি ফর্ম

Published
Categorized as Nahw

অতীত কালের ফি’লের একটিভ থেকে প্যাসিভ করার নিয়ম

একটিভ থেকে প্যাসিভ ফর্মে নেয়ার সময় কী অপরিবর্তিত রাখবো একটিভ থেকে প্যাসিভ ফর্মে নেয়ার সময় কী পরিবর্তন করবো নিম্নে প্রতিটা ফ্যামিলি থেকে একটি করে উদাহরণ দেয়া হলো : অতীতকাল ফ্যামিলি  প্যাসিভ ফর্ম  একটিভ ফর্ম  فُتِحَ فَتَحَ ফ্যামিলি -১ ضُرِبَ ضَرَبَ نُصِرَ نَصَرَ سُمِعَ سَمِعَ حُسِبَ حَسِبَ – كَرُمَ عُلِّمَ  عَلَّمَ ফ্যামিলি -২  جُوْهِدَ جَاهَدَ ফ্যামিলি… Continue reading অতীত কালের ফি’লের একটিভ থেকে প্যাসিভ করার নিয়ম

Published
Categorized as Nahw

سَحَرَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

ফি’ল-৮ : سَحَرَ জাদু করা বহুবচন দ্বিবচন একবচন هُمْ سَحَرُوْا هُمَا سَحَرَا هُوَ سَحَرَ তারা জাদু করেছে তারা (দুজন) জাদু করেছে সে জাদু করেছে هُنَّ سَحَرْنَ هُمَا سَحَرَتَا هِيَ سَحَرَتْ তারা জাদু করেছে তারা (দুজন) জাদু করেছে সে জাদু করেছে أَنْتُمْ سَحَرْتُمْ أَنْتُمَا سَحَرْتُمَا أَنْتَ سَحَرْتَ তোমরা জাদু করেছো তোমরা (দুজন) জাদু করেছো তুমি জাদু… Continue reading سَحَرَ ফি’লের Perfect/অতীতকালের ১৪টি ফর্ম

অতীতকালের না বোধক বাক্য (ক্রিয়াবাচক) গঠন

অতীতকালের (ক্রিয়াবাচক) না বোধক বাক্য মূলত তিনটি হরফের মাধ্যমে করা যায় যথা লাম (لَمْ), লাম্মা (لَمَّا) এবং মা-(مَا)। নিচের টেবিলে দেখবো কখন কোনটি ব্যবহৃত হয়: مَا لَمَّا لَمْ ভুল প্রমাণ করে (refute) নেতিবাচক বাক্য গঠনে এখনো কাজটি হয়নি (not yet) অর্থ দিয়ে নেতিবাচক বাক্য গঠনে সাধারণ নেতিবাচক বাক্য গঠনে না, সে (তো) আঘাত করেনি সে… Continue reading অতীতকালের না বোধক বাক্য (ক্রিয়াবাচক) গঠন

লাম (لَمْ) ব্যবহার করে না বোধক বাক্যের কুরআনুল কারীম থেকে উদাহরণ

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে লাম (لَمْ) ব্যবহার করে না বোধক বাক্যের আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত অথবা তাদের সতর্ক নাই করেন, ওরা ঈমান আনবে না أَمْ لَمْ تُنْذِرْهُمْ لَا يُؤْمِنُونَ তুমি কি জান না যে আল্লাহ্ নিঃসন্দেহে সব-কিছুর উপরে সর্বশক্তিমান? أَلَمْ تَعْلَمْ أَنَّ اللَّهَ عَلَىٰ كُلِّ شَيْءٍ قَدِيرٌ কোন পুরুষমানুষ… Continue reading লাম (لَمْ) ব্যবহার করে না বোধক বাক্যের কুরআনুল কারীম থেকে উদাহরণ

লাম্মা (لَمَّا) না বোধক ও যখন অর্থে কুরআনুল কারীম থেকে উদাহরণ

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে লাম্মা (لَمَّا) ব্যবহার করে না বোধক (not yet) বাক্যের আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত আল্লাহ এখনও দেখেননি তোমাদের মধ্যে কারা জেহাদ করেছে এবং কারা ধৈর্য্যশীল لَمَّا يَعْلَمِ اللَّهُ الَّذِينَ جَاهَدُوا مِنكُمْ وَيَعْلَمَ الصَّابِرِينَ  এখনও তোমাদের অন্তরে ঈমান প্রবেশ করেনি لَمَّا يَدْخُلِ الْإِيمَانُ فِي قُلُوبِكُمْ… Continue reading লাম্মা (لَمَّا) না বোধক ও যখন অর্থে কুরআনুল কারীম থেকে উদাহরণ

পবিত্র কুরআনুল কারীমে মা- (مَا) এর ব্যবহার

মা- (مَا) শব্দটির পবিত্র কুরআনুল কারীমে তিনটি ব্যবহার দেখা যায়। যথা :১ না বোধক বাক্য গঠনে২ সম্বন্ধসূচক সর্বনাম (Relative Pronoun) হিসাবে৩ কি (What) যুক্ত প্রশ্নবোধক বাক্য গঠনে নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে মা- (مَا) শব্দটির পূর্বোক্ত তিন ধরণের ব্যবহার দেখবো : ১ না বোধক বাক্য গঠনে মা- (مَا) বাংলা অর্থ আরবি আয়াত আর তোমরা… Continue reading পবিত্র কুরআনুল কারীমে মা- (مَا) এর ব্যবহার

মা-(مَا) ব্যবহার করে অতীতকালের না বোধক (ক্রিয়াবাচক) বাক্যের উদাহরণ

মা- (مَا) ব্যবহার করে অতীতকালের না বোধক (ক্রিয়াবাচক) বাক্য গঠনের ক্ষেত্রে অতীতকালের ফি’লের কোনো রূপ পরিবর্তন হয়না। নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে মা- (مَا) ব্যবহার করে অতীতকালের না বোধক (ক্রিয়াবাচক) বাক্যের আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত কিন্তু তারা আমাদের কোনো জুলুম করেনি, বরং তারা নিজেদেরই জুলুম করেছিল। وَمَا ظَلَمُونَا… Continue reading মা-(مَا) ব্যবহার করে অতীতকালের না বোধক (ক্রিয়াবাচক) বাক্যের উদাহরণ

ফ্যামিলি-১ فَتَحَ (Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কাল)

দ্বিতীয় ধাপে আমরা প্রতিটা ফ্যামিলির দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সম্পর্কে বিস্তারিত শিখবো।দ্বিতীয় সদস্য হল Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ১৪টি ফর্ম । ১৪ টি ফর্ম আসার কারণ ১৪ টি সর্বনাম। নিচের টেবিল থেকে আমরা ফ্যামিলি -১ (فَتَحَ) এর অন্তুর্ভুক্ত ১ টি ফি’লের জন্য ১৪ টি Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ১৪টি ফর্ম বানানো দেখবো : ফি’ল -১ :… Continue reading ফ্যামিলি-১ فَتَحَ (Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কাল)

Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কাল চিনিবার উপায়

Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কাল মানে এটি নির্দেশ করে যে কাজটি এখনও শেষ হয়নি।একটি আরবি ক্রিয়া Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কালে আছে কি না তা সনাক্ত করতে আমরা তিনটি ধাপ অনুসরণ করব। প্রথমত, আমরা লক্ষ্য করব কী হরফ দিয়ে ফি’লটি শুরু হয়েছে। কারণ বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ফি’ল সর্বদা চারটি হরফের যেকোনো একটি দিয়ে শুরু হয়। হরফগুলো… Continue reading Imperfect/বর্তমান বা ভবিষ্যত কাল চিনিবার উপায়

লাইট ও লাইটেস্ট হারফ

লাইট হারফ আরবি ভাষায় Imperfect /বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ফি’লের আগে কিছু অব্যয়/বর্ণ এসে সেই ফি’লের স্ট্যাটাসকে লাইট (মানসুব) ফর্মে পরিবর্তিত করে দেয়, এরকম হারফকে, লাইট হারফ (الحروف الناصبة للمضارع ) বলা হয়।পবিত্র কুরআনুল কারীমে নিম্নলিখিত লাইট হারফের ব্যবহার দেখা যায় : উদাহরণ অর্থ লাইট হারফ أَنْ يَنْصُرَসাহায্য করতে to/that -প্রতি/যে أَنْ لَنْ يَنْصُرَসে সাহায্য… Continue reading লাইট ও লাইটেস্ট হারফ

কিভাবে একটি বর্তমান কালের ফি’লকে লাইট ফর্ম বানাতে হয় !

সাধারণভাবে, একটি বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ফি’ল শেষ হয় পেশ হরকত বা নূন হরফ দিয়ে। তন্মধ্যে ৫ টি সর্বনামের ক্ষেত্রে পেশ হরকত দিয়ে শেষ হয় এবং বাকি ৯ টি সর্বনামের ক্ষেত্রে নূন (ن) দিয়ে শেষ হয়।নিচের টেবিল থেকে একটি ফি’লের বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ১৪ টি ফর্ম দেখে মিলিয়ে নেই কিভাবে/কী হরফ দিয়ে ফি’লটি শেষ… Continue reading কিভাবে একটি বর্তমান কালের ফি’লকে লাইট ফর্ম বানাতে হয় !

ফ্যামিলি-১ থেকে Light ফর্মের উদাহরণ

فتح বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَفْتَحُوْا يَفْتَحَا يَفْتَحَ يَفْتَحْنَ تَفْتَحَا تَفْتَحَ تَفْتَحُوْا تَفْتَحَا تَفْتَحَ تَفْتَحْنَ تَفْتَحَا تَفْتَحِيْ نَفْتَحَ   أَفْتَحَ ضَرَبَ বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَضْرِبُوْا يَضْرِبَا يَضْرِبَ يَضْرِبْنَ تَضْرِبَا تَضْرِبَ تَضْرِبُوْا تَضْرِبَا تَضْرِبَ تَضْرِبْنَ تَضْرِبَا تَضْرِبِيْ نَضْرِبَ   أَضْرِبَ نَصَرَ বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَنْصُرُوْا يَنْصُرَا يَنْصُرَ يَنْصُرْنَ تَنْصُرَا تَنْصُرَ تَنْصُرُوْا تَنْصُرَا تَنْصُرَ تَنْصُرْنَ تَنْصُرَا تَنْصُرِيْ نَنْصُرَ… Continue reading ফ্যামিলি-১ থেকে Light ফর্মের উদাহরণ

কিভাবে বর্তমান কালের ফি’লকে লাইটেস্ট ফর্ম বানাতে হয় !

সাধারণভাবে, একটি বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ফি’ল শেষ হয় পেশ হরকত বা নূন হরফ দিয়ে। তন্মধ্যে ৫ টি সর্বনামের ক্ষেত্রে পেশ হরকত দিয়ে শেষ হয় এবং বাকি ৯ টি সর্বনামের ক্ষেত্রে নূন (ن) দিয়ে শেষ হয়।নিচের টেবিল থেকে একটি ফি’লের বর্তমান বা ভবিষ্যত কালের ১৪ টি ফর্ম দেখে মিলিয়ে নেই কিভাবে/কী হরফ দিয়ে ফি’লটি শেষ… Continue reading কিভাবে বর্তমান কালের ফি’লকে লাইটেস্ট ফর্ম বানাতে হয় !

ফ্যামিলি-১ থেকে Lightest ফর্মের উদাহরণ

فتح বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَفْتَحُوْا يَفْتَحَا يَفْتَحْ يَفْتَحْنَ تَفْتَحَا تَفْتَحْ تَفْتَحُوْا تَفْتَحَا تَفْتَحْ تَفْتَحْنَ تَفْتَحَا تَفْتَحِيْ نَفْتَحْ   أَفْتَحْ ضَرَبَ বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَضْرِبُوْا يَضْرِبَا يَضْرِبْ يَضْرِبْنَ تَضْرِبَا تَضْرِبْ تَضْرِبُوْا تَضْرِبَا تَضْرِبْ تَضْرِبْنَ تَضْرِبَا تَضْرِبِيْ نَضْرِبْ   أَضْرِبْ نَصَرَ বহুবচন দ্বিবচন একবচন يَنْصُرُوْا يَنْصُرَا يَنْصُرْ يَنْصُرْنَ تَنْصُرَا تَنْصُرْ تَنْصُرُوْا تَنْصُرَا تَنْصُرْ تَنْصُرْنَ تَنْصُرَا تَنْصُرِيْ نَنْصُرْ… Continue reading ফ্যামিলি-১ থেকে Lightest ফর্মের উদাহরণ

প্রতিটি ফ্যামিলির প্রথম চারটি সদস্যের তালিকা

প্রতিটি পরিবারের অধীনে কিছু সদস্য রয়েছে। এ পর্যন্ত আমরা চারটি গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সম্পর্কে জেনেছি। সহজে মনে রাখা ও বোঝার জন্য চারটি সদস্যকে পাশাপাশি নিম্নলিখিত টেবিলে দেখানো হলো: ছোট ছয়টি ফ্যামিলি/ফ্যামিলি -১ লাইটেস্ট ফর্ম লাইট ফর্ম বর্তমান/ভবিষ্যত কালের ফর্ম অতীত কালের ফর্ম يَفْتَحْ يَفْتَحَ يَفْتَحُ فَتَحَ يَضْرِبْ يَضْرِبَ يَضْرِبُ ضَرَبَ يَنْصُرْ يَنْصُرَ يَنْصُرُ نَصَرَ يَسْمَعْ يَسْمَعَ… Continue reading প্রতিটি ফ্যামিলির প্রথম চারটি সদস্যের তালিকা

চারটি সদস্যের প্রতিটি সদস্য থেকে ১৪ টি ফর্মের উদাহরণ

প্রতিটি পরিবারের অধীনে কিছু সদস্য রয়েছে। এ পর্যন্ত আমরা চারটি গুরুত্বপূর্ণ সদস্য সম্পর্কে জেনেছি। যথা : ১ অতীত কালের ফর্ম ২ বর্তমান/ভবিষ্যত কালের ফর্ম ৩ লাইট ফর্ম ৪ লাইটেস্ট ফর্ম এখানে প্রতিটি ফ্যামিলির যে প্রথম সদস্যের নাম দেয়া আছে, এটা মূলত সর্বনাম هو/হুয়া ফর্মের জন্য। অতএব বাকি তেরোটি সর্বনামের জন্য আরো তেরোটি করে ফর্ম পাওয়া… Continue reading চারটি সদস্যের প্রতিটি সদস্য থেকে ১৪ টি ফর্মের উদাহরণ

লাইটেস্ট ফর্ম থেকে কীভাবে ফি’ল নাহি বানাবো

ফি’ল নাহি অনুজ্ঞাসূচক ফি’লের অন্তর্ভুক্ত। এজন্য প্রথমেই অনুজ্ঞাসূচক ফি’লের কিছু সাধারণ বৈশিষ্ট্য নিম্নে দিয়ে হলো : যেমন : উপরোক্ত আলোচনার ভিত্তিতে, ফি’লের বর্তমান/ভবিষ্যত কালের দ্বিতীয় পুরুষের ৬ টি ফর্ম ব্যবহার করব। উদাহরণ হিসাবে فَعَلَ ফি’লের বর্তমান/ভবিষ্যত কালের দ্বিতীয় পুরুষের ৬ টি ফর্ম নেয়া হলো। অতঃপর দ্বিতীয় ধাপে লাইটেস্ট ফর্ম বানানো হলো এবং চূড়ান্ত ধাপে প্রতিটি… Continue reading লাইটেস্ট ফর্ম থেকে কীভাবে ফি’ল নাহি বানাবো

প্রতিটি ফ্যামিলির বহুল ব্যবহৃত দুটি ফি’ল নাহি ফর্ম

নাহি ফর্ম-ছোট ছয়টি ফ্যামিলি/ফ্যামিলি -১ বহুবচন (পুরুষবাচক) একবচন (পুরুষবাচক) ফ্যামিলি -১ لاَ  تَفْتَحُوْا لاَ  تَفْتَحْ فَتَحَ لاَ  تَضْرِبُوْا لاَ  تَضْرِبْ ضَرَبَ لاَ  تَنْصُرُوْا لاَ  تَنْصُرْ نَصَرَ لاَ  تَسْمَعُوْا لاَ  تَسْمَعْ سَمِعَ لاَ  تَحْسِبُوْا لاَ  تَحْسِبْ حَسِبَ لاَ  تَكْرُمُوْا لاَ  تَكْرُمْ كَرُمَ নাহি ফর্ম-বড় ফ্যামিলি/ফ্যামিলি (২ -১০) বহুবচন (পুরুষবাচক) একবচন (পুরুষবাচক) ফ্যামিলি لاَ  تُعَلِّمُوْا لاَ  تُعَلِّمْ ২ / عَلَّمَ لاَ  تُجَاهِدُوْا لاَ  تُجَاهِدْ ৩ /جَاهَدَ لاَ  تُسْلِمُوْا لاَ  تُسْلِمْ ৪ /أَسْلَمَ لاَ  تَتَعَلَّمُوْا لاَ  تَتَعَلَّمْ ৫… Continue reading প্রতিটি ফ্যামিলির বহুল ব্যবহৃত দুটি ফি’ল নাহি ফর্ম

ফ্যামিলি-১ থেকে ফি’ল নাহির উদাহরণ

النهي عنه/Forbid/অনুজ্ঞাসূচক ৬টি  ফর্ম  لاَ  تَفْتَحْ (তুমি) খুলবে না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تَفْتَحُوْا لاَ  تَفْتَحَا لاَ  تَفْتَحْ لاَ  تَفْتَحْنَ لاَ  تَفْتَحَا لاَ  تَفْتَحِيْ لاَ  تَضْرِبْ (তুমি) আঘাত করবে না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تَضْرِبُوْا لاَ  تَضْرِبَا لاَ  تَضْرِبْ لاَ  تَضْرِبْنَ لاَ  تَضْرِبَا لاَ  تَضْرِبِيْ لاَ  تَنْصُرْ (তুমি) সাহায্য করবে না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تَنْصُرُوْا لاَ  تَنْصُرَا لاَ  تَنْصُرْ لاَ  تَنْصُرْنَ لاَ  تَنْصُرَا لاَ  تَنْصُرِيْ لاَ  تَسْمَعْ (তুমি) শুনবে না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تَسْمَعُوْا لاَ  تَسْمَعَا لاَ  تَسْمَعْ لاَ  تَسْمَعْنَ… Continue reading ফ্যামিলি-১ থেকে ফি’ল নাহির উদাহরণ

ফ্যামিলি -২ থেকে ফি’ল নাহির উদাহরণ

النهي عنه/Forbid/অনুজ্ঞাসূচক ৬টি  ফর্ম  لاَ  تُعَلِّمْ – তুমি শিক্ষা দিও না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تُعَلِّمُوْا لاَ  تُعَلِّمَا لاَ  تُعَلِّمْ لاَ  تُعَلِّمْنَ لاَ  تُعَلِّمَا لاَ  تُعَلِّمِيْ لاَ  تُبَدِّلْ – তুমি পরিবর্তন করোনা বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تُبَدِّلُوْا لاَ  تُبَدِّلَا لاَ  تُبَدِّلْ لاَ  تُبَدِّلْنَ لاَ  تُبَدِّلَا لاَ  تُبَدِّلِيْ لاَ  تُبَشِّرْ – তুমি সুসংবাদ দিও না বহুবচন দ্বিবচন একবচন لاَ  تُبَشِّرُوْا لاَ  تُبَشِّرَا لاَ  تُبَشِّرْ لاَ  تُبَشِّرْنَ لاَ  تُبَشِّرَا لاَ  تُبَشِّرِيْ لاَ  تُذَكِّرْ – তুমি স্মরণ করিয়ে দিও না বহুবচন… Continue reading ফ্যামিলি -২ থেকে ফি’ল নাহির উদাহরণ

কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল নাহি ফর্মের উদাহরণ

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল নাহি ফর্মের আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত দুনিয়াতে তোমরা গন্ডগোল সৃষ্টি কর না لَا تُفْسِدُوا فِي الْأَرْضِ আল্লাহর সাথে তোমরা অন্য কাউকে সমকক্ষ করো না لَا تَجْعَلُوا لِلَّهِ أَندَادًا  তোমরা (দুজন) এ গাছের নিকটবর্তী হয়ো না لَا تَقْرَبَا هَٰذِهِ الشَّجَرَةَ  তোমরা সত্যকে… Continue reading কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল নাহি ফর্মের উদাহরণ

ফি’ল নাহি থেকে কীভাবে ফি’ল আমর বানাবো

প্রতিটা ফি’লের নাহি ফর্ম নিবো। এখানে উদাহরণস্বরূপ প্রতিটি ফ্যামিলির প্রথম ফি’ল নাহি ফর্ম নেয়া হলো : নাহি ফর্ম-ছোট ছয়টি ফ্যামিলি/ফ্যামিলি -১ নাহি ফর্ম ফ্যামিলি -১ لاَ  تَفْتَحْ فَتَحَ لاَ  تَضْرِبْ ضَرَبَ لاَ  تَنْصُرْ نَصَرَ لاَ  تَسْمَعْ سَمِعَ لاَ  تَحْسِبْ حَسِبَ لاَ  تَكْرُمْ كَرُمَ নাহি ফর্ম-বড় ফ্যামিলি/ফ্যামিলি (২ -১০) নাহি ফর্ম ফ্যামিলি (২ -১০) لاَ  تُعَلِّمْ ২ / عَلَّمَ لاَ  تُجَاهِدْ ৩ /جَاهَدَ لاَ  تُسْلِمْ… Continue reading ফি’ল নাহি থেকে কীভাবে ফি’ল আমর বানাবো

ফ্যামিলি-১ থেকে ফি’ল আমরের উদাহরণ

الامر منهُ/Command/অনুজ্ঞাসূচক ৬টি  ফর্ম  إِفْتَحْ (তুমি) খুলে দাও বহুবচন দ্বিবচন একবচন إِفْتَحُوْا إِفْتَحَا إِفْتَحْ إِفْتَحْنَ إِفْتَحَا إِفْتَحِيْ إِضْرِبْ (তুমি) আঘাত করো বহুবচন দ্বিবচন একবচন إِضْرِبُوْا إِضْرِبَا إِضْرِبْ إِضْرِبْنَ إِضْرِبَا إِضْرِبِيْ أُنْصُرْ (তুমি) সাহায্য করো বহুবচন দ্বিবচন একবচন أُنْصُرُوْا أُنْصُرَا أُنْصُرْ أُنْصُرْنَ أُنْصُرَا أُنْصُرِيْ إِسْمَعْ (তুমি) শোন বহুবচন দ্বিবচন একবচন إِسْمَعُوْا إِسْمَعَا إِسْمَعْ إِسْمَعْنَ إِسْمَعَا إِسْمَعِيْ

ফ্যামিলি -২ থেকে ফি’ল আমরের উদাহরণ

الامر منهُ/Command/অনুজ্ঞাসূচক ৬টি  ফর্ম  عَلِّمْ – তুমি শিক্ষা দাও বহুবচন দ্বিবচন একবচন عَلِّمُوْا عَلِّمَا عَلِّمْ عَلِّمْنَ عَلِّمَا عَلِّمِيْ بَدِّلْ – তুমি পরিবর্তন করো বহুবচন দ্বিবচন একবচন بَدِّلُوْا بَدِّلَا بَدِّلْ بَدِّلْنَ بَدِّلَا بَدِّلِيْ بَشِّرْ – তুমি সুসংবাদ দাও বহুবচন দ্বিবচন একবচন بَشِّرُوْا بَشِّرَا بَشِّرْ بَشِّرْنَ بَشِّرَا بَشِّرِيْ ذَكِّرْ – তুমি স্মরণ করিয়ে দাও বহুবচন দ্বিবচন একবচন ذَكِّرُوْا… Continue reading ফ্যামিলি -২ থেকে ফি’ল আমরের উদাহরণ

কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল আমর ফর্মের উদাহরণ

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল আমর ফর্মের আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত হে মানব সমাজ! তোমরা তোমাদের পালনকর্তার এবাদত কর يَا أَيُّهَا النَّاسُ اعْبُدُوا رَبَّكُمُ  যারা ঈমান এনেছে এবং সৎকাজসমূহ করেছে, তাদেরকে সুসংবাদ দিন وَبَشِّرِ الَّذِينَ آمَنُوا وَعَمِلُوا الصَّالِحَاتِ তুমি ও তোমার স্ত্রী জান্নাতে বসবাস করতে থাক … Continue reading কুরআনুল কারীম থেকে ফি’ল আমর ফর্মের উদাহরণ

পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে কিছু নির্বাচিত আদেশ

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে আমাদের জন্য কিছু নির্বাচিত আদেশের আরবি আয়াত ও বাংলা অর্থ দেয়া হলো : বাংলা অর্থ (রেফারেন্স) আরবি আয়াত আর মাতাপিতার সাথে সদ্ব্যবহার করো, এবং আ‌ত্মীয়স্বজন, এতিম, আর মিসকিনদের সাথে (২:৮৩) وَبِالْوَالِدَيْنِ إِحْسَانا وَذِي الْقُرْبَىٰ وَالْيَتَامَىٰ وَالْمَسَاكِينِ  আর লোকদের সাথে উত্তমভাবে কথা বলো (২:৮৩) وَقُولُوا لِلنَّاسِ حُسْنًا নামায প্রতিষ্ঠা করো… Continue reading পবিত্র কুরআনুল কারীম থেকে কিছু নির্বাচিত আদেশ

ইসম ফাই’ল

ইসম ফাই’ল (اسم فاعل ) ইসম ফাই’ল একটি কর্মের/ক্রিয়ার (ফি’লের) কর্তাকে বোঝায়। যেমন বাংলা ভাষায় যিনি শিক্ষা দেয়ার কাজটি করেন তাকে বলা হয় শিক্ষক অথবা যিনি বিক্রি করেন তাকে বলা হয় বিক্রেতা । এখানে শিক্ষক এবং বিক্রেতা দুটি ইসম ফাই’লের উদাহরণ।অতএব, ইসম ফাই’ল সর্বদা ক্রিয়া থেকে উদ্ভূত একটি ইসম।এটি ফি’লের ফ্যামিলির (ছোট ফ্যামিলি এবং বড়… Continue reading ইসম ফাই’ল

মাত্র ৩ টি মূল বর্ণ (Root Letter) থেকে ২২৪ টি শব্দ গঠন

ভাষা হিসেবে আরবি একটি শক্তিশালী ভাষা। এই ভাষায় বিপুল সংখ্যক শব্দভাণ্ডার রয়েছে। এটা যেকোনো ভাষায় বিরল যে মাত্র তিনটি মূল বর্ণ (Root Letter) থেকে দুই শতাধিক অর্থপূর্ণ শব্দ তৈরি করা যায়। উদাহরণ হিসাবে আমরা তিনটি মূল বর্ণ (Root Letter) যথা ل, ع ও م নিয়ে ফ্যামিলি -২ অনুকরণে ২২৪ টি শব্দ তৈরি করবো ইন শা… Continue reading মাত্র ৩ টি মূল বর্ণ (Root Letter) থেকে ২২৪ টি শব্দ গঠন

পর্ব-১: ইমরানের (আঃ) কন্যা মারিয়াম (আঃ)

এই পর্বে সূরা তাহরীমের নিম্নোক্ত ১২ নম্বর আয়াত নেয়া হয়েছে : وَمَرْيَمَ ابْنَتَ عِمْرَانَ الَّتِي أَحْصَنَتْ فَرْجَهَا فَنَفَخْنَا فِيهِ مِن رُّوحِنَا وَصَدَّقَتْ بِكَلِمَاتِ رَبِّهَا وَكُتُبِهِ وَكَانَتْ مِنَ الْقَانِتِينَ এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৭ টি শব্দ শিখবো যা পবিত্র কোরআনে ৭৭৯৮ বার এসেছে : আরবি শব্দ (বাংলা উচ্চারণ) অর্থ ১. مَرْيَمَ (মারইয়াম) মারিয়াম (আঃ)/Maryam (as)… Continue reading পর্ব-১: ইমরানের (আঃ) কন্যা মারিয়াম (আঃ)

পর্ব-২: মারিয়াম (আঃ) এর জন্ম

এই পর্বে সূরা আল ইমরানের নিম্নোক্ত ৩৫ ও ৩৬ নম্বর আয়াতের কিছু অংশ নেয়া হয়েছে : إِذْ قَالَتِ امْرَأَتُ عِمْرَانَ رَبِّ إِنِّي نَذَرْتُ لَكَ مَا فِي بَطْنِي مُحَرَّرًا فَتَقَبَّلْ مِنِّي ۖ إِنَّكَ أَنتَ السَّمِيعُ الْعَلِيمُ ‎. فَلَمَّا وَضَعَتْهَا قَالَتْ رَبِّ إِنِّي وَضَعْتُهَا أُنثَىٰ وَاللَّهُ أَعْلَمُ بِمَا وَضَعَتْ وَلَيْسَ الذَّكَرُ كَالْأُنثَىٰ এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত… Continue reading পর্ব-২: মারিয়াম (আঃ) এর জন্ম

পর্ব-৩: মারিয়ামের (আঃ) অভিভাবক

এই পর্বে সূরা আল ইমরানের নিম্নোক্ত ৩৬ ও ৩৭ নম্বর আয়াতের কিছু অংশ নেয়া হয়েছে : وَإِنِّي سَمَّيْتُهَا مَرْيَمَ وَإِنِّي أُعِيذُهَا بِكَ وَذُرِّيَّتَهَا مِنَ الشَّيْطَانِ الرَّجِيمِ ‎‏ فَتَقَبَّلَهَا رَبُّهَا بِقَبُولٍ حَسَنٍ وَأَنبَتَهَا نَبَاتًا حَسَنًا وَكَفَّلَهَا زَكَرِيَّا এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৬ টি শব্দ শিখবো যা পবিত্র কোরআনে ৪১৮১ বার এসেছে : আরবি শব্দ (বাংলা… Continue reading পর্ব-৩: মারিয়ামের (আঃ) অভিভাবক

পর্ব-৪: মারিয়ামের (আঃ) প্রতি আল্লাহর বিশেষ রিযিক

এই পর্বে সূরা আল ইমরানের নিম্নোক্ত ৩৭ নম্বর আয়াতের কিছু অংশ নেয়া হয়েছে كُلَّمَا دَخَلَ عَلَيْهَا زَكَرِيَّا الْمِحْرَابَ وَجَدَ عِندَهَا رِزْقًا ۖ قَالَ يَا مَرْيَمُ أَنَّىٰ لَكِ هَٰذَا ۖ قَالَتْ هُوَ مِنْ عِندِ اللَّهِ ۖ إِنَّ اللَّهَ يَرْزُقُ مَن يَشَاءُ بِغَيْرِ حِسَابٍ এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৮ টি শব্দ শিখবো যা পবিত্র কোরআনে ১৮৮৫… Continue reading পর্ব-৪: মারিয়ামের (আঃ) প্রতি আল্লাহর বিশেষ রিযিক

পর্ব-৫: যাকারিয়্যা (আঃ) এর দোয়া

এই পর্বে সূরা আল ইমরানের নিম্নোক্ত ৩৮ ও ৩৯ নম্বর আয়াত নেয়া হয়েছে : هُنَالِكَ دَعَا زَكَرِيَّا رَبَّهُ ۖ قَالَ رَبِّ هَبْ لِي مِن لَّدُنكَ ذُرِّيَّةً طَيِّبَةً ۖإِنَّكَ سَمِيعُ الدُّعَاءِ  فَنَادَتْهُ الْمَلَائِكَةُ وَهُوَ قَائِمٌ يُصَلِّي فِي الْمِحْرَابِ أَنَّ اللَّهَ يُبَشِّرُكَ بِيَحْيَىٰ مُصَدِّقًا بِكَلِمَةٍ مِّنَ اللَّهِ وَسَيِّدًا وَحَصُورًا وَنَبِيًّا مِّنَ الصَّالِحِينَ ‎ এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৮ টি শব্দ… Continue reading পর্ব-৫: যাকারিয়্যা (আঃ) এর দোয়া

পর্ব-৬: একজন মনোনীত নারী

এই পর্বে সূরা আল ইমরানের নিম্নোক্ত ৪২ নম্বর ও ৪৩ নম্বর আয়াত নেয়া হয়েছে وَإِذْ قَالَتِ الْمَلَائِكَةُ يَا مَرْيَمُ إِنَّ اللَّهَ اصْطَفَاكِ وَطَهَّرَكِ وَاصْطَفَاكِ عَلَىٰ نِسَاءِ الْعَالَمِينَيَا مَرْيَمُ اقْنُتِي لِرَبِّكِ وَاسْجُدِي وَارْكَعِي مَعَ الرَّاكِعِينَ এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৬ টি শব্দ শিখবো যা পবিত্র কোরআনে ৬৪১৫ বার এসেছে : আরবি শব্দ (বাংলা উচ্চারণ) অর্থ… Continue reading পর্ব-৬: একজন মনোনীত নারী

পর্ব-৭ : মারিয়ামের (আঃ) জন্য সুসংবাদ

এই পর্বে সূরা মারিয়ামের নিম্নোক্ত ১৬ থেকে ১৯ নম্বর আয়াত নেয়া হয়েছে وَاذْكُرْ فِي الْكِتَابِ مَرْيَمَ إِذِ انتَبَذَتْ مِنْ أَهْلِهَا مَكَانًا شَرْقِيًّا ‎فَاتَّخَذَتْ مِن دُونِهِمْ حِجَابًا فَأَرْسَلْنَا إِلَيْهَا رُوحَنَا فَتَمَثَّلَ لَهَا بَشَرًا سَوِيًّاقَالَتْ إِنِّي أَعُوذُ بِالرَّحْمَٰنِ مِنكَ إِن كُنتَ تَقِيًّاقَالَ إِنَّمَا أَنَا رَسُولُ رَبِّكِ لِأَهَبَ لَكِ غُلَامًا زَكِيًّا এই পর্ব থেকে আমরা নিম্নোক্ত ৮ টি… Continue reading পর্ব-৭ : মারিয়ামের (আঃ) জন্য সুসংবাদ

পবিত্র কুরআনুল কারীমে উল্লেখিত ২৫ জন নবীর নাম

পবিত্র কুরআনুল কারীম বুঝার জন্য কুরআনের শব্দভাণ্ডার (vocabulary) অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যতই ব্যাকরণ শিখিনা কেন, শুধু ব্যাকরণ দিয়ে পবিত্র কুরআনুল কারীমের অর্থ বুঝা সম্ভব নয়। তাই একই সাথে আমাদের কুরআনের শব্দভাণ্ডারও শিখতে হবে । পবিত্র কুরআনুল কারীমে ২৫ জন নবীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে এবং তাদের আলোচনা বিভিন্ন সূরায় একাধিক জায়গায় স্থান পেয়েছে। আবার কোনো… Continue reading পবিত্র কুরআনুল কারীমে উল্লেখিত ২৫ জন নবীর নাম

সর্বাধিক ব্যবহৃত নামবাচক বিশেষ্য/Proper Noun

পবিত্র কুরআনুল কারীমে সর্বাধিক ব্যবহৃত ২০ টি নামবাচক বিশেষ্যর (Proper Noun ) তালিকা নিচে দেয়া হলো: নাম উল্লেখিত সংখ্যা নাম উল্লেখিত সংখ্যা ٱللَّه (আল্লাহ) ২৬৯৯ مَرْيَم (মারিয়াম) ৩৪ مُوسَىٰ (মুসা) ১৩৬ يُوسُفُ (ইউসুফ) ২৭ شَيْطَٰن (শয়তান) ৮০ لُوطٌ (লুত) ২৭ جَهَنَّم (জাহান্নাম) ৭৭ ثَمُود (সামুদ) ২৬ فِرْعَوْن(ফিরআউন) ৭৪ آدَمُ (আদম) ২৫ إِبْرَاهِيمُ (ইব্রাহীম) ৬৯ عِيسَى (ঈসা)… Continue reading সর্বাধিক ব্যবহৃত নামবাচক বিশেষ্য/Proper Noun

সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত শব্দ-১

এই সিরিজে ধারাবাহিকভাবে পবিত্র কুরআনুল কারীমে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইসম ও হারফের তালিকা উদাহরণসহ দেয়া হবে ইন শা আল্লাহ ! উদাহরণ অর্থ শব্দের ধরণ শব্দ مِنْ شَرِّ مَا خَلَقَতিনি যা সৃষ্টি করেছেন, তার অনিষ্ট থেকে হতে, থেকে, চেয়ে হারফ مِن اللَّهُ الصَّمَدُআল্লাহ অমুখাপেক্ষী আল্লাহ ইসম ٱللَّه إِنَّ الْإِنْسَانَ لَفِي خُسْرٍনিশ্চয়ই মানুষ ক্ষতির মধ্যে আছে মধ্যে হারফ فِى قُلْ إِنَّ هُدَى… Continue reading সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত শব্দ-১

Published
Categorized as Vocabulary

সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত শব্দ-২

এই সিরিজে ধারাবাহিকভাবে পবিত্র কুরআনুল কারীমে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ইসম ও হারফের তালিকা উদাহরণসহ দেয়া হবে ইন শা আল্লাহ ! উদাহরণ অর্থ শব্দের ধরণ শব্দ يَا أَيُّهَا النَّاسُ اعْبُدُوا رَبَّكُمُ الَّذِي خَلَقَكُمْ হে মানবজাতি! তোমাদের প্রভুর উপাসনা করো, যিনি তোমাদের সৃষ্টি করেছেন  যে/যিনি ইসম (সম্বন্ধসূচক সর্বনাম) ٱلَّذِى ذَٰلِكَ الْكِتَابُ لَا رَيْبَ فِيهِএ সেই কিতাব যাতে কোনই সন্দেহ নেই।  নেই… Continue reading সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত শব্দ-২

Published
Categorized as Nahw

পবিত্র কুরআনে বহুল ব্যবহৃত ফি’ল-قَالَ

قَالَ –يَقُولُ–قُلْ পবিত্র কুরআনে সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ফি’ল/ক্রিয়া হলো قَالَ এবং ইহার বিভিন্ন রূপ যার সংখ্যা ১৬১৮ বার।এই ফি’লটি রুট বর্ণ ق و ل থেকে এসেছে। এই ফি’লটির সবচেয়ে বেশি ব্যবহৃত ফর্মগুলি অর্থ সহ নিচের টেবিলে দেওয়া হলো: উদাহরণ অর্থ ফি’ল قَالَ إِنِّي أَعْلَمُ مَا لَا تَعْلَمُونَতিনি বললেন — “আমি নিশ্চয় যা জানি তোমরা তা জানো… Continue reading পবিত্র কুরআনে বহুল ব্যবহৃত ফি’ল-قَالَ

আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা কাদের ভালোবাসেন !

নিম্নের টেবিলে পবিত্র কুরআনুল কারীমে প্রত্যক্ষভাবে উল্লেখিত ৭ টি গুণাবলীর (*) কথা রয়েছে, যেই গুণগুলো অর্জনের মাধ্যমে আমরা আল্লাহর ভালোবাসা অর্জন করতে পারি : বাংলা অর্থ আরবি আয়াত নিশ্চয় আল্লাহ্ মুত্তাকীদের ভালোবাসেন। إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْمُتَّقِينَ নিশ্চয় আল্লাহ অনুগ্রহকারীদেরকে ভালোবাসেন।  إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ الْمُحْسِنِينَ  নিশ্চয় আল্লাহ তওবাকারী এবং পবিত্রতা রক্ষাকারীদের ভালোবাসেন। إِنَّ اللَّهَ يُحِبُّ التَّوَّابِينَ… Continue reading আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তায়ালা কাদের ভালোবাসেন !

ব্যাকরণ বিশ্লেষণ : সূরা আল ইখলাস

সূরা আল ইখলাস بِسْمِ اللَّهِ الرَّحْمَٰنِ الرَّحِيمِ  اللَّهُ الصَّمَدُ  قُلْ هُوَ اللَّهُ أَحَدٌ  وَلَمْ يَكُن لَّهُ كُفُوًا أَحَدٌ  لَمْ يَلِدْ وَلَمْ يُولَدْ  বাক্য-১ : قُلۡ هُوَ ٱللَّهُ أَحَدٌ বাক্য-২ : ٱللَّهُ ٱلصَّمَدُ বাক্য-৩ : لَمۡ یَلِدۡ وَلَمۡ یُولَدۡ বাক্য-৪ : وَلَمۡ یَكُن لَّهُۥ كُفُوًا أَحَدُۢ كَانَ-র উপর অতিরিক্ত নোট

স্ট্যাটাসের উপর অনুশীলন

স্ট্যাটাসের প্রকার প্রতিটা ইসমের স্টেটাস নিচের যেকোন একটি হতে পারে : পবিত্র কুরআন থেকে কিছু ইসম নিচের টেবিলে অনুশীলনের জন্য দেয়া হল: মন্তব্য জার্ (J) নাসব (N) রফা (R) ইসম – – R أَحَدٌ – N – كُفُوًا J – – حَاسِدٍ  যে কোনটি হতে পারে J N R هَٰذَا – N – النَّاسَ –… Continue reading স্ট্যাটাসের উপর অনুশীলন

জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্য/Nominal Sentence

জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্য/Nominal Sentence বলতে কী বুঝায় ? আরবি ব্যাকরণে, জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্য/Nominal Sentence হল এমন এক ধরনের বাক্য যেখানে Subject/উদ্দেশ্য ঐ বাক্যের কেন্দ্রবিন্দু হিসাবে থাকে এবং এই Subject/উদ্দেশ্য সম্পর্কে বাক্যে এক/একাধিক Predicate/খবর থাকে। জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্যের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ বৈশিষ্ট্য হল এই বাক্যের মধ্যে কোন ক্রিয়া (Action Verb) থাকেনা। জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্যর উপাদান আরবী ব্যাকরণে… Continue reading জুমলা ইসমিয়া/নামমাত্র বাক্য/Nominal Sentence

বিভিন্ন মুক্ত সর্বনামের চারটি বৈশিষ্ট্য

এই পোস্টে আমরা দেখবো বিভিন্ন মুক্ত/Detached সর্বনামের/Pronoun চারটি বৈশিষ্ট্য : টাইপ লিঙ্গ বচন স্টেটাস বাংলা অর্থ সর্বনাম নির্দিষ্ট পুরুষবাচক একবচন রফা সে هُوَ নির্দিষ্ট পুরুষ/স্ত্রীবাচক দ্বিবচন রফা তারা দুজন هُمَا নির্দিষ্ট পুরুষবাচক বহুবচন রফা তারা هُمْ নির্দিষ্ট স্ত্রীবাচক একবচন রফা সে هِيَ নির্দিষ্ট স্ত্রীবাচক বহুবচন রফা তারা هُنَّ নির্দিষ্ট পুরুষবাচক একবচন রফা তুমি أَنْتَ নির্দিষ্ট পুরুষ/স্ত্রীবাচক… Continue reading বিভিন্ন মুক্ত সর্বনামের চারটি বৈশিষ্ট্য

error: Content is protected !!